সফল উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন?

110
সফল উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন?
উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন

একজন সফল উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন? এমন প্রশ্নের জবাবে আমরা বলবো, সফল উদ্যোক্তা হওয়ার মূলমন্ত্র হল আপনাকে চ্যালেঞ্জ নিতে শিখতে হবে। সেইসাথে শিখতে হবে ত্যাগ স্বীকার করা ও নিজের মনোবলকে সব সময়ে পজিটিভ দিকে ধাবিত রাখা। কাজেই আমি যদি একজন সফল উদ্যোক্তা হতে চাই, তবে প্রথমেই নিজেকে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত করে নিতে হবে। তা না হলে অচিরেই ঝরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

উদ্যোক্তা হওয়ার পথে বাধা আর চ্যালেঞ্জ আসবেই, বিশেষ করে যাঁরা একদমই প্রথমবারের মত কোনও উদ্যোগ নিচ্ছেন তাঁদের সামনে এমন কিছু বিষয় আসবে যা আপনি ভাবতেও পারেননি। বর্তমানে সময়ের সাথে অনেকেই এগিয়ে এসেছেন এই উদ্যোক্তা পেশায়। অনেক মানুষ নিজের বর্তমান পেশা ছেড়ে এই সেক্টরে, মনোনিবেশ করছে। কিন্তু সঠিক পরিকল্পনার অভাবে অনেকেই তেমন কোন সাফল্য পাচ্ছে না এই পেশায়।

এইগুলো পড়তে পারেনঃ-

একজন উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে অধিষ্ঠিত করার জন্য যারা পরিপূর্ণ গাইডলাইন খুঁজছেন, তাদের জন্যই মূলত আজকের আলোচনা। আশা করি, একজন উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন, তার পরিপূর্ণ গাইডলাইন হয়ে উঠবে আজকের আলোচনা।

উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন

উদ্যোক্তা হতে চাই মনে এই ভাসনা থাকলে আপনার জীবনে বেশ কিছু পরিবর্তন আসতে শুরু করবে। আপনার চিন্তা ভাবনা থেকে শুরু করে আপনার ব্যবহার আচার, চলাফেরা, কথাবার্তা সবকিছুতেই বদল আসবে।

ভালোভাবে কাজ শুরু করার পর বুঝতে পারবেন আপনি ইচ্ছামত ঘুমাতে পারছেন না, নিজের মত সময় কাটানোর মত সময় পাচ্ছেন না, বন্ধুবান্ধবের সাথে ইচ্ছামত আড্ডা দিতে পারছেন না। সেইসাথে অনেক কাছের মানুষ যারা কখনও আপনার ব্যাপারে প্রশ্ন করেনি তারা বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ করতে শুরু করবে। কারণ তাদের পেছনে যে এনার্জি ও সময় দিতেন তা এখন আর দিচ্ছেন না। অনেকে আবার স্বার্থপরও বলে বসবে।

মানুষ যেভাবে আগে আপনাকে দেখত, এখন আর দেখবে না। এবং এটা অনেক সময়েই আপনাকে মানসিক যন্ত্রণা দেবে। এবং এগুলো সাথে নিয়ে নিজের কাজ করে যাওয়াটা বড় একটা চ্যালেঞ্জ। কিন্তু সফল উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য এগুলো সহ্য করে কাজ করে যেতে হবে। ব্যবসা সফল হওয়ার আগ পর্যন্ত আপনার প্রধান মনোযোগের বিষয় হবে কিভাবে ব্যবসাকে সফল করবেন। এবং সফল হওয়ার পরও আপনাকে এটা চালিয়ে যেতে হবে। উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন? তা জানার জন্য আপনাকে নিচের কিছু চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে।

১. চ্যালেঞ্জ নিতে হবে

কেউ এসে আপনাকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিবে না। বরং একজন উদ্যোক্তা হিসেবে, নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাইলে, নিজেকেই নিজের উপর চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে হবে। চ্যালেঞ্জ উদ্যোক্তাদের, কাজ করার ক্ষেত্রে অনুপ্রেরণা হিসেবে ভূমিকা পালন করবে। আপনি যদি আপনার পরবর্তী চ্যালেঞ্জের কথা চিন্তা করেন, তাহলে নিজের কাজকে সেইভাবে গুছিয়ে নিতে পারবেন। 

উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, ধরুন আপনি কোন জিমে গিয়েছেন। আপনার বডির শক্তি বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে, আপনাকে প্রথমে ১০ কিলো ভর নিতে হবে, বাইসেপ তৈরি করার জন্য। প্রথমে খানিকটা কষ্ট হতে পারে, কিন্তু আপনি যদি একবার বডির শক্তি বৃদ্ধি করতে পারেন, তাহলে বেশি কষ্ট হবে না।

মূলত চ্যালেঞ্জ আপনাকে যেকোনো সাধারণ কাজ কিংবা কঠিন কাজকে সহজ করে তুলে। একজন উদ্যোক্তা হতে হলে, আপনাকে সবসময় পরবর্তী চ্যালেঞ্জ খুঁজে নিতে হবে।

২. ঝুঁকি নেয়ার মানসিকতা থাকতে হবে 

মানুষ সবসময় ঝুঁকি নেওয়া থেকে, নিজেকে গুটিয়ে রাখে। কিন্তু একজন সফল উদ্যোক্তা হতে হলে, আপনাকে অবশ্যই ঝুঁকি নেওয়ার মানসিকতা থাকতে হবে। ব্যবসা করার কৌশল জানা থাকলে, ঝুঁকি নিলেও ব্যবসায় ব্যর্থ হওয়ার সম্ভবানা কমে যাবে।

কারণ সফল উদ্যোক্তারা জানে যে, তাদের কি ধরণের ঝুঁকি নিতে হয়? কি ধরণের ঝুঁকি নিতে হয় না। ঝুঁকি নেওয়াটা অনেক বিপদজনক হতে পারে, কিন্তু ঝুঁকির থেকে যে সুবিধা আপনি পেতে পারেন, তা আর অন্য উপায় অবলম্বন করে পাবেন না। তাই কি ধরনের ঝুঁকি, আপনাকে সফলতা প্রদান করতে পারে, তা আপনাকে বেছে নিতে হবে।

৩. আস্থা রাখুন নিজের উপর

আপনি যদি নিজের উপর ভরসা না রাখেন, তাহলে কে রাখবে? একজন পরিপূর্ণ সফল উদ্যোক্তা হতে হলে, আপনাকে পরিপূর্ণ রূপে যা শিখবেন, তা কাজে লাগাতে হবে। নিজের স্কিল সমূহের উপর বিশ্বাস রেখে কাজ করলে, আপনি অনেক ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি থেকে নিজেকে মুক্ত রাখতে পারবেন। 

যখন আপনি উদ্যোক্তা হিসেবে কোন ধরণের ব্যবসা করবেন, আপনি মনে রাখবেন যে, কি পরিমাণ জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতা আপনার রয়েছে। অনেক উদ্যোক্তারাই অন্যের অধীনে বহু বছর কাজের পর, এই পেশায় নিজেদের আন্তঃ-নিয়োগ করে। তাই যখন কেন ধরণের সাহায্যের প্রয়োজন হবে, তখন অবশ্যই যে কারো কাছে সাহায্য চাইতে পারেন।

মাত্র ৩ হাজার টাকা নিয়ে ব্যবসা শুরু করে, এখন বাংলাদেশের প্রধান মোবাইল ফোন এক্সসরিজ নির্মাতা হালিমা টেলিকম। এরকম খবর উঠে এসেছে, প্রথম আলোর খবরে। সুতরাং, নিজের উপর আস্থা রেখে, ব্যবসা শুরু করে দিন। আপনার আত্মবিশ্বাস আপনাকে অনেক দূরে এগিয়ে নিয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।

৪. মূলধন নিয়ে পরিকল্পনা করুন

উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন? তার জন্য মূলধন নিয়ে পরিকল্পনা করা জরুরি। স্টার্ট-আপ বলুন কিংবা ব্যবসার কথা বলুন, সকল ক্ষেত্রে প্রয়োজন হয় অর্থের। এইটা জীবিকা নির্বাহের ক্ষেত্রে একটি অংশবিশেষ। অনেক উদ্যোক্তাদের দেখা যায় অর্থ সংগ্রহ করতে করতে, তাদের আর কোন পরিকল্পনা থাকেনা।

উদ্যোক্তা হতে চাইলে আপনাকে ব্যক্তিগত ও ব্যবসার টাকা আলাদা করতে শিখতে হবে। প্রয়োজনে আলাদা আলাদা এ্যাকাউন্টে টাকা রাখতে হবে। আগে হয়তো এক জায়গায় সব টাকা রেখে খরচ করতেন, কিন্তু ব্যবসা শুরুর পর আর তা করা যাবে না। যে কোনও অভ্যাস দূর করাটাই একটা চ্যালেঞ্জ, আর টাকা পয়সা সংক্রান্ত অভ্যাসগুলো পরিবর্তন করাটা আরও বড় চ্যালেঞ্জ। কিন্তু উদ্যোক্তা হিসেবে সফল হতে চাইলে এটা আপনাকে করতেই হবে।

মূলত অর্থ সংগ্রহের জন্য মাধ্যম হল:

  • ব্যক্তিগত সংগ্রহ।
  • ইনভেস্টরের মাধ্যমে। 
  • স্টার্ট-আপ লোনের মাধ্যমে। 

আপনি কোন মাধ্যমে অর্থ নিবেন এবং তা কোন ক্ষেত্রে আপনাকে ব্যয় করতে হবে, তার জন্য একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। একজন উদ্যোক্তা হতে হলে, প্রশ্ন করার মানসিকতা থাকতে হবে। সেই প্রশ্ন উত্তর পেয়ে, তা কাজে লাগাতে হবে। এই গুণ যেকোনো সফল উদ্যোক্তা হবার পূর্ববর্তী বলে বিবেচিত হয়।

৫. অপ্রত্যাশিত ঘটনা মোকাবেলা করার প্রস্তুতি

ছোট হোক, বড় হোক নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে মাঠে নামলে অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটবেই। আপনি যেমনটা আশা করবেন। প্রথমেই তেমনটা ঘটার সম্ভাবনা খুবই কম। এবং এই চ্যালঞ্জ মোকাবেলা করার প্রস্তুতি ও মানসিকতা নিয়েই আপনাকে শুরু করতে হবে।

অনিশ্চয়তার মুখেও সফল ভাবে এগিয়ে যেতে পারাই এই চ্যালেঞ্জকে জয় করার সেরা উপায়। আর এই অনিশ্চয়তার চ্যালেঞ্জ জয় করতে হলে আপনাকে ব্যবসা শুরু করার আগেই কিছু বিষয় হিসাব করে রাখতে হবে। নিচের কয়েকটি পয়েন্ট আপনাকে এ বিষয়ে সাহায্য করবে।

**         মার্কেটে নামার আগে কয়েক ধরনের মার্কেটিং প্ল্যান সেট করুন। প্ল্যান A, B, C – এভাবে পরিকল্পনা সাজান। কি কি কারণে প্রথম প্ল্যানটি কাজ না করতে পারে, সেগুলো নির্দিষ্ট করে বোঝার চেষ্টা করুন। এরপর সেই কারণগুলো ঘটলে কি ব্যবস্থা নেবেন – তা আগে থেকেই ঠিক করে রাখুন দ্বিতীয় প্ল্যান হিসেবে। আবার দ্বিতীয় প্ল্যানের ক্ষেত্রেও একই কাজ করুন। এভাবে করলে দেখবেন সম্ভাব্য সব অনিশ্চয়তা গুলো বুঝতে পারার পাশাপাশি সেই সমস্যার সমাধানও ভাবতে পারছেন। এতেকরে, বাস্তবে এইসব পরিস্থিতিতে পড়লে সহজেই বিপদ কাটাতে পারবেন।

**         মার্কেটে নেমে অনেক সময়েই দেখা যায় যা বাজেট করেছিলেন তাতে কাজ হচ্ছে না। এই ঝামেলা এড়ানোর জন্য কিছু টাকা আলাদা করে রাখুন। বাজেট ঘাটতি পুরোপুরি পূরণ না হলেও ধাক্কা সামলানো সহজ হয়ে যাবে।

**         অপ্রত্যাশিত প্রতিযোগীতা বা ক্রেতা/গ্রাহকদের নেতিবাচক রেসপন্স হলে কি করবেন তা আগে থেকে প্ল্যান করে রাখুন। প্রয়োজনে অভিজ্ঞদের পরামর্শ নিন। তারা কি ধরনের সমস্যায় পড়েছিল এবং কিভাবে এর সমাধান করেছিল তা জানার চেষ্টা করুন এবং সেই অনুযায়ী নিজের প্ল্যান সাজান।

**         প্রথমেই একবারে না নেমে একটু একটু করে পরীক্ষামূলক ভাবে এক একটি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করুন। সব ডিম এক ঝুড়িতে রাখবেন না। পরীক্ষামূলক অবস্থায় যে কৌশলটি সবচেয়ে ভালো ফল দেবে সেটাই চূড়ান্ত ভাবে কাজে লাগান।

একজন উদ্যোক্তা কখনওই অনিশ্চয়তা বা চ্যালেঞ্জ দেখে পিছিয়ে যান না। সঠিক পরিকল্পনা ও কাজ দিয়ে প্রতিটি অনিশ্চয়তাই জয় করা সম্ভব। অনিশ্চয়তার মুখে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা সফল উদ্যোক্তা হওয়ার একটি প্রধান শর্ত।

এইগুলো পড়তে পারেনঃ-

সফল উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন? এমন প্রশ্নের জবাবের প্রধান শর্তই হল চ্যালেঞ্জ নেয়া। আসলে যে মানুষটি উদ্যোক্তা হতে চায় সে এমনিতেই চ্যালেঞ্জ নেয়ার মানসিকতা সম্পন্ন। কিন্তু তারপরও অনেক সময়ে অপ্রত্যাশিত ধাক্কা চলে আসে। সফল উদ্যোক্তা হতে চাইলে যেগুলোর জন্য প্রস্তুত থাকা ভালো।

উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন?

একজন অভিজ্ঞ উদ্যোক্তা তাঁর সামনে আসা যে কোনও চ্যালেঞ্জ খুব ভালোভাবে মোকাবেলা করতে পারেন। আপনিও পারবেন। আমরা এই লেখায় শুধু এমন সব চ্যালেঞ্জ কাভার করার চেষ্টা করেছি, যেগুলো নতুন উদ্যোক্তাদের বেশিরভাগ সময়েই পার করতে হয়। তবে এগুলো মোকাবেলা করার প্রস্তুতি আর জ্ঞান থাকলে সহজেই পার হওয়া যায়।

আর মনে রাখবেন, সফল উদ্যোক্তা হতে হলে কি করবেন? এমন প্রশ্নের জবাবে উত্তর এটা কিন্তু চিরজীবনের জন্য নয়। আপনি যখন একটি ভালো পর্যায়ে যাবেন, এবং যখন আপনার কাজ করার জন্য লোক নিতে পারবেন তখন সাফল্যকে পুরো মাত্রায় উপভোগ করতে পারবেন।

Previous articleবাংলাদেশে কত বছর বয়স পর্যন্ত মানুষ লম্বা হয় ?
Next articleমুনজেরিন শহীদ – ঘরে বসে স্পোকেন ইংলিশ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here