এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট ঘোষণা করা হচ্ছে

এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট ঘোষণা করা হচ্ছে

পরীক্ষা না দিয়ে অটোপাশ করে ফল প্রকাশের পর আইনি জটিলতা এড়াতে বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড একটি অধ্যাদেশ জারির উদ্যোগ নিয়েছিল।  বিভিন্ন আইনি জটিলতার সংশোধন করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার এই অধ্যাদেশ জারির মাদ্ধমে।অধ্যাদেশ জারির পর এই ফল পাবে শিক্ষার্থীরা। বর্তমান সংসদ কার্যকর না থাকায় এক মন্ত্রিসভা থেকে অধ্যাদেশ জারি করা হয়।

এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট খুব দ্রুত ঘোষণা করবে বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড। অধ্যাদেশ জারি করার মাধ্যমে রেজাল্ট ঘোষণা করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট ঘোষণা করার পর রেজাল্ট জানুন  এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলঃ

এইচএসসি পরীক্ষার্থীর রেজাল্ট কাঠামোঃ

যে আঙ্গিকে তৈরি করা হবে এইবছর এইচএসসি পরীক্ষার্থীর ফলাফল। তার একটি ব্যবহারিক কাঠামো আপনাদেরকে দেখানো হলো।

ধরুন, একজন শিক্ষার্থীর জেএসসি পরীক্ষার জিপিএ গ্রেড ছিল ৪.৫০ এবং এসএসসি পরীক্ষার গ্রেড ৪.৭৫। তাহলে তাদের মোট গ্রেড পয়েন্ট  ৯.৭৫। এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল তৈরি করা হবে গ্রেড পয়েন্ট অ্যাভারেজ হিসাবে। তাহলে শিক্ষার্থীর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল হবে  ( ৪.৫০+৪.৭৫) / ২ = ৪.৬২।

 

মন্ত্রনালয় ঘোষিত মানদণ্ডঃ

এইচএসসি পরীক্ষার ফল তৈরীর কাজ ছাত্র-ছাত্রীর বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী এবং ঘোষিত গ্রেড তৈরীর মানদণ্ড অনুযায়ী বিভিন্ন ডাটা সংগ্রহ করা হচ্ছে বলে জানান ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক এস এম আমীর-উল ইসলাম। নীতিমালা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই দ্রুত ফল প্রকাশ করা হবে বলে জানান তিনি। গত ৭ অক্টোবর এক সংবাদ সম্মেলনে এইচএসসি পরীক্ষা বাতিল ঘোষণা করেন শিক্ষামন্ত্রী ডাক্তার দীপু মনি। এই দিন তিনি জানান, জেএসসি ও  এসএসসি পরীক্ষার ভিত্তিতে ঘোষণা করা হবে এইচএসসি পরিক্ষার ফল।

২৫ নভেম্বর আর এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান এই এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে। এসএসসি পরীক্ষার উপর ভিত্তি করে ৭৫ শতাংশ এবং নিম্ন মাধ্যমিক বা জেএসসি পরীক্ষার ফলের উপর ভিত্তি করে ২৫ শতাংশ গুরুত্ব দিয়ে তৈরি করা হবে শিক্ষার্থীর এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট।

এই নীতিমালার উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন বোর্ড এবং উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংগ্রহ করছেন শিক্ষার্থীর ডাটা । বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড প্রয়োজনীয় ডাটা তৈরীর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে তাদের নিজ নিজ শিক্ষা বোর্ড।  অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম জানান শিক্ষার্থীর ফলাফল তৈরি কঠিন হবে না। তিনি আরো বলেন নীতিমালা চূড়ান্ত করনের জন্য মন্ত্রণালয়ে একের পর এক বৈঠক হচ্ছে ।সবচেয়ে উপযুক্ত নীতিমালা তৈরির লক্ষ্যে বিশেষজ্ঞরা চিন্তা করছেন এবং পরামর্শ দিচ্ছেন।

তবে প্রকাশের জন্য এখনো কোন গাইডলাইন হাতে পায়নি শিক্ষা বোর্ড। নাম্বারসিট সংরক্ষণের কোন সেতু তৈরি করা হয়নি এখনো। এইচএসসি রেজাল্ট জানুয়ারি ১৫ তারিখের পর পাওয়া যেতে পারে বলে ধারণা করা যাচ্ছে। ডাক্তার দীপু মনির নির্দেশনায় খুব দ্রুত কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড।

 

বিভিন্ন পরীক্ষার রেজাল্ট জানতে ক্লিক করুন

দেশের সকল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজাল্ট জানতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন এবং জেনেনিন আপনার কাঙ্খিত রেজাল্ট

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজাল্ট

দেশের সকল শিক্ষক নিবন্ধন রেজাল্ট জানতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন এবং জেনেনিন আপনার কাঙ্খিত রেজাল্ট

শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফলাফলঃ

দেশের সকল বোর্ডের জেএসসি / এসএসসি/ এইচএসসি/  রেজাল্ট জানতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন এবং জেনেনিন আপনার       কাঙ্খিত রেজাল্ট

জেএসসি/এসএসসি/এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলঃ

দেশের সকল প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনি রেজাল্ট জানতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন এবং জেনেনিন আপনার কাঙ্খিত রেজাল্ট

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফলাফলঃ

এইচএসসি রেজাল্ট বিলম্বিত হওয়ায় শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিয়ে বিভিন্ন সংশোধন নিয়ে আসছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। দেশের বিভিন্ন স্থানে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাদের আলাদা আলাদা কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা সংগ্রহ করবেন। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত পরবর্তী কোনো ঘোষণা এখন পর্যন্ত জানানো হয়নি।

 

 

 আরও পড়ুন ঃ- 

 

আপনার মন্তব্যঃ

%d bloggers like this: