এলপিজির মূল্য নির্ধারণে হাইকোর্টের নির্দেশনা

এলপিজির মূল্য নির্ধারণে হাইকোর্টের নির্দেশনা

২০০৯ সাল থেকে দামগুলি সংশোধন করা হয়নি । জ্বালানী নিয়ন্ত্রক তরল পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) মূল্য নির্ধারণের জন্য ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) পদক্ষেপটি তার চেয়ারম্যানের কাছে মূল্য নির্ধারণের পূর্বের আদালতের আগের আদেশ না মানার জন্য অবমাননার নিয়মের মুখোমুখি হয়েছিল মাত্র এক সপ্তাহ।

রোববার বিইআরসি সদস্য মো: মকবুল-ই-এলাহী চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেছেন , “আদালতের আদেশের অনুগতির সাথে আমরা ১৪ ই জানুয়ারী, ১৭ ও ১৮ জানুয়ারির তিন দিনের জন্য শুনানি অনুষ্ঠিত করব।

২৯ শে নভেম্বর হাইকোর্ট বিইআরসি প্রধানের বিরুদ্ধে অবমাননার বিধি জারি করে। এলপিজির মূল্য নির্ধারণের বিষয়ে হাইকোর্টের আগের নির্দেশনা বাস্তবায়নে ব্যর্থ হওয়ায় কেন তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা হবে না সে বিষয়ে রুলটি ব্যাখ্যা চেয়েছিল।

বিআরসি চেয়ারম্যানকে এই রুলের জবাব দেওয়ার জন্য দুই সপ্তাহ সময় দেওয়া হয়েছিল। বিইআরসি ২০০৯ সাল থেকে এলপিজির দাম সংশোধন করেনি।

বর্তমানে আমদানির পরে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন, বাজারে এলপিজি সহ ৫৮ টি অনুমোদিত সংস্থার মধ্যে ১৮ টিই বাজারজাত করছে।

দেশে এলপিজি খরচ গত তিন বছরে চারগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে, পরিবার, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান এবং যানবাহনগুলি জ্বালানির উপর ক্রমবর্ধমানভাবে নির্ভর করে।

এ বছর দেশে প্রায় ৭১৩,০০০ টন এলপিজির চাহিদা রয়েছে বলে জানিয়েছে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ। তবে বিপিসি কেবল ২০,০০০ টন সরবরাহ করতে পারে, তাই এলপিজি বাজারে সিংহের ভাগ বেসরকারী সংস্থাগুলি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হবে।

আপনার মন্তব্যঃ

%d bloggers like this: