ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা এক সপ্তাহে ফর্সা ত্বক

রূপচর্চা কমে বেশি সকলে আমরা করে থাকি। কিন্তু ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা এক সপ্তাহে ফর্সা ত্বক পাওয়া গেলে কেমন হয়? কিন্তু আগের মতো রূপের যত্ন করা যায় না। বর্তমানের ব্যস্ত দিনে আর আগের মতো রূপচর্চা করা হয়না। আর এই অবহেলার ফলে ত্বক আর আগের মতো সুন্দর নেই। খেয়াল করলে দেখা যায় আমাদের দাদী নানীর ত্বক অনেক সুন্দর ও টান টান। কেননা তারা সেই সময় কোনো ক্যামিকেল উপাদান ব্যবহার করেন নি। তারা সবসময় ঘরোয়া উপাদান ব্যবহার করেছেন। তাই তাদের ত্বক আজও সুন্দর ও উজ্জ্বল। কিন্তু আমরা এখন অলসপ্রিয় জাতির ক্যামিকেল যুক্ত ঔষধ ব্যবহার করতে করতে আমাদের ত্বকের সৌন্দর্য ও কমে যায়। আর অল্প বয়সে ত্বকের চাপ পড়ে যায়। এইসকল সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আমাদের আবার সেই আগের মতো ঘরোয়া উপায় পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। আসুন জেনে নেই ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা করার উপায়।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা করার উপায়

ত্বক সুন্দর হোক কে না চায়। তবে অনেক সময় ব্যস্ততার কারণে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় হয়ে উঠে না ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা করার। এছাড়া কাজের চাপ,বাইরে  প্রচণ্ড গরম সঙ্গে বৃষ্টি। আস্তে আস্তে হারিয়ে যেতে থাকে আপনার ত্বকের লাবণ্য। তবে আপনি চাইলে বাড়িতেই অল্প সময়তেই সঠিক পদ্ধতি ব্যবহার করে ফর্সা হয়ে উঠবেন।আর এর জন্য মাত্র এক সপ্তাহ সময় যথেষ্ঠ। আসুন জেনে নেই কীভাবে ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা এক সপ্তাহে পাবেন ফর্সা ত্বক।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা করার বিভিন্ন ধাপ

ঘরে থাকা বিভিন্ন উপকরণ দিয়েই করা যাবে রূপচর্চা। ত্বক ও চুল থাকবে সতেজ ও সুন্দর নিয়ম করে আগের মতো সৌন্দর্যসেবা কেন্দ্রে যাওয়ার সুযোগ হচ্ছে না এখন। তাই ত্বক ও চুলের যত্নে বাড়িতে দিতে হচ্ছে বাড়তি সময়। ত্বক ও চুলের যত্নে ঘরোয়া উপাদানের ব্যবহার অনেকেই করে থাকেন। তবে সঠিক ফল পেতে জেনে নিতে হবে সঠিক উপকরণ ব্যবহারের প্রয়োগ।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা এক সপ্তাহে
ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা এক সপ্তাহে
  • অ্যালোভেরা

ত্বকের যত্নে এলোভেরা জেল বিশেষভাবে উপকারী। এলোভেরা গাছের পাতার জেল মুখের কালো দাগ থেকে মুক্তি করে আবার জেল মুখে মাস্ক হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। আবার অন্য দিকে ব্ল্যাক হেডস দূর করে। আবার ত্বককে পরিষ্কার করে ত্বকের লোমকূপ গুলো খুলে দেয়।তবে এলোভেরা দিয়ে ফেস প্যাক ও বানাতে পারেন।পরিমাণ মতো এলোভেরা জেল নিয়ে তাতে বাদাম গুঁড়া মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। এই পেস্ট এবার মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ থেকে ২০ মিনিট। তারপর ভালোভাবে মুখ ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন ঘরোয়া উপায়ে এলোভেরা দারুণ যত্ন নেয়। অ্যালোভেরা জেল ত্বককে ফর্সা করার পাশপাশি নানারকম স্কিন ডিজিজের প্রকোপ কমাতেও সাহায্য করে। অন্যদিকে, বাদাম গুঁড়ো মুখে জমে থাকা ময়লা এবং ব্ল্যাক হেডস দূর করতে দারুন কাজে আসে।

  • মুলতানি মাটি

মুলতানি মাটি বা ফুলারস আর্থ, একধরনের মাটিজাতীয় রূপচর্চার উপকরণ। শুধু উজ্জ্বলতা বাড়াতেই নয়, ত্বকে জীবাণুনাশক (অ্যান্টিসেপটিক) হিসেবেও কাজ করে এই মুলতানি মাটি। তবে রূপচর্চার উপকরণ হিসেবে ব্যবহারের আগে এই মুলতানি মাটি আসল কি না, তা জেনে নেওয়াটা খুব জরুরি। যদি পানিতে গোলানোর পর একটু ঘন হয়, তবে এটি আসল মুলতানি মাটি। আর যদি বালুর মতো হাতে কিছু অনুভূত হয়, তবে তা আসল নয়।

  • টমাটো

লাইকোপেন নামক উপাদান সমৃদ্ধ হলো টমেটো। যা আমাদের ত্বকের মৃত কোষকে সরিয়ে ফেলে আর ত্বকের লোমকূপ গুলো পরিষ্কার করে। ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা বা ত্বকের দাগ দূর করতে এই টমেটো দারুণ কাজ করে। ত্বক উজ্জ্বল ও ফর্সা করতে এই লাইকোপেন উপাদান বিশেষ কাজ করে। পরিমাণ মতো টমেটো কে ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিন এর সাথে ২চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রনটি ২০ থেকে ২৫ মিনিট মুখে রেখে দিন। তারপর শুকিয়ে গেলে টান্ডা পানি দিয়ে ভালোভাবে মুখ ধুয়ে ফেলুন। হাতের কাছে টমেটো আমাদের ঘরোয়া ভাবে ত্বকের যত্ন নিতে দারুণ কাজ করে।১-২ টো টমাটো ব্লেন্ডারে ফেলে তার সঙ্গে ২ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। এই মিশ্রনটা ভাল করে মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। সময় হয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভাল করে ধুয়ে ফেলতে হবে মুখটা।

  • ডিমের ফেস প্যাক 

ডিমের ফেস প্যাক আমরা কম বেশি সকলেই জানি। ত্বক ফর্সা করতে ডিমের কোনো বিকল্প নেই। সহজ উপায়ে ডিম আমরা হাতের কাছে পেয়ে থাকি। একটি বাটিতে ডিম নিয়ে সেটিকে ফাটিয়ে ভালোভাবে কুসুম আর সাদা অংশ মিশিয়ে নিন। এরপরে সেই মিশ্রনটি ভালোভাবে মুখে লাগিয়ে নিন। মুখে লাগিয়ে ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর শুকিয়ে গেলে মুখ ভালোভাবে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

  • গোলাপজল

ত্বকের যত্নে আর ত্বকে গোলাপি ভাব আনতে গোলাপ জল দারুণ কাজ করে। গোলাপ জল আমাদের ত্বক পরিষ্কার করে। আগের কালে গোলাপের পাঁপড়িকে পানিতে ভিজিয়ে সারারাত রেখে দিত পরের দিন সকালে সেই পানি গোলাপ জল হিসেবে ব্যবহার করত। কিন্তু বর্তমানে রেডিমেট গোলাপ জল পাওয়া যায়। এই জক মুখের ত্বক সুন্দর আর পরিষ্কার রাখে।

  • ডাবের পানি

ত্বককে ভেতর থেকে সুন্দর করে তুলতেও ডাবের পানির কোনও বিকল্প নেই। দিনে দুবার যদি ডাবের পানি দিয়ে মুখ ধোয়া যায়, তাহলে ত্বক ফর্সা হতে একেবারে সময়ই লাগে না। শুধু তাই নয়, মুখের দাগ মেটাতেও এই ঘরোয়া পদ্ধতিটি দারুন কাজে আসে।

  • খাবার সোডা ও পানি

পরিমাণ মতো খাবার সোডা নিয়ে তাতে অল্প করে পানি মিশিয়ে একটা থকথকে পেস্ট বানিয়ে নিন। তারপর সেটা মুখে এবং গলায় ১৫ মিনিট ধরে লাগানোর পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপচর্চা এক সপ্তাহে

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

thirteen + thirteen =

Back to top button