ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা নিয়ে বিস্তারিত

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন প্রয়োজন?

ডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং এটির প্রয়োজনীয়তাই বা কি? উদ্যোক্তা থেকে শুরু করে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী সবাই এখন ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে জানতে চায়। বর্তমান যুগ ডিজিটাল মার্কেটিং এর যুগ। এখন ঘরে বসে অনলাইনে কেনা কাটা থেকে শুরু করে, অনলাইনে ইনকাম করা সবটাই এই ডিজিটাল মার্কেটিং এর ওপর নির্ভর করে।

পন্য বা সেবা সমূহকে বিজ্ঞাপনসহ বাজার গবেষনার মাধ্যমে বিক্রয় করার পক্রিয়াকেই মার্কেটিং বলে। আর ডিজিটাল মার্কেটিং হচ্ছে ডিজিটাল মিডিয়া ও ডিজিটাল প্রযুক্তি কে ব্যবহার করে অনলাইন/ইন্টারনেট এর মাধ্যমে পণ্য বা সেবার বিক্রয় কাজ পরিচালনা করা। আর আমরা মার্কেটিং করার জন্য যতো ধরনের বা পদ্ধতি ব্যবহার করি এগুলোই হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং।

ডিজিটাল মার্কেটিং বলতে মানুষ মূলত সোশ্যাল মিডিয়ায় পন্যের বিজ্ঞাপনকেই বুঝে। কিন্তু আসলে ব্যাপারটা কি তাই? আসুন আজকের এই আর্টিকেল থেকে আমরা জানার চেষ্টা করি, ডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং এর সাথে আরো কি কি ব্যাপার জড়িত আছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ধাপগুলোই বা কি? কি কি উপায়ে ডিজিটাল মার্কেটিং করা যায়? এই সব বিষয়গুলো নিয়েই আমাদের আজকের আলোচনা। কথা না বাড়িয়ে আসুন জেনে নেই ডিজিটাল মার্কেটিং কি?

ডিজিটাল মার্কেটিং কি

একটি ব্যবসার সফলতা পুরোপুরিভাবে নির্ভর করে তার মার্কেটিং এর উপর। মার্কেটিং বলতে সাধারণত আমরা কোন পণ্য বা সার্ভিসের প্রচার প্রচারণাকেই বুঝি। কিন্তু না, এর অর্থ আরো অনেক গভীর। শুধুমাত্র প্রচার প্রচারণা দিয়েই মার্কেটিং এর প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যায় না। একটু ভাবুন, আমি আপনার কাছে আমার পণ্যের প্রচার করলাম, কিন্তু আমার এই পণ্য আপনি নিবেন না, আপনার কোন প্রয়োজন নেই। তাহলে এই মার্কেটিং কি আমার জন্য কোনভাবে লাভজনক হবে? কখনো না। সহজ কথায়, মার্কেটিং হলো ক্রেতার মন জয় করে তার কাছে কোন পণ্য বিক্রি করা। এবার আসুন ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে বুঝার চেষ্টা করি।

এইগুলো পড়তে পারেনঃ-

যেহেতু বিষয়টা একটু জটিল, আমি উদাহরণের মাধ্যমে আপনাকে স্পষ্টভাবে বুঝাবো। ধরুন, আপনার একটি মোবাইল ফোনের দোকান আছে, তার পাশেই আপনার বন্ধুরও একটি মোবাইলের দোকান। তাহলে, আপনাদের দুজনের বিজনেসের মধ্যে সবসময় একটা কম্পিটিশন থাকবে এটাই স্বাভাবিক। এখন, আপনার বন্ধু ফেসবুকে একটি পেইজ খুলল তার দোকানের নামে এবং তার যত কাস্টমার আছে সবাইকে ওই পেজে এনগেইজ করে ফেলল, পাশাপাশি আপনার এলাকার যত মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে সবাই আস্তে আস্তে তার পেইজ ফলো করতে লাগল। আপনি দেখলেন হুট করে আপনার দোকানের কাস্টমার কমে গেল, যারা আপনার দোকানে আসত তারাও আপনার বন্ধুর দোকানে চলে যাচ্ছে। তাহলে এখানে ঘটনাটা কি ঘটল!

খুব সিম্পল ব্যপার, আপনার এলাকার অধিকাংশ মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে। আপনার বন্ধুর বিজনেসের অনলাইন প্রেজেন্স থাকায় তার দোকানে নতুন কোন মোবাইল ফোন আসার সাথে সাথে ফেসবুক পেজে ছবি আপলোড করে দেয় এবং তার পেজের ফলোয়াররা খুব সহজে জানতে পারে। এদিকে আপনার অনলাইনে কোন এক্টিভিটি নাই। আপনার দোকানে তার থেকে ভালো পণ্য নিয়ে আসলেও আপনার কাস্টমার রা এত তাড়াতাড়ি কোন আপডেট পাচ্ছে না। তাহলে আপনি আপনার বন্ধুর সাথে কম্পিটিশনে টিকে থাকতে পারবেন?

ডিজিটাল মার্কেটিং কি
ডিজিটাল মার্কেটিং কি

তো এভাবেই, প্রতিটি বিজনেসের অনলাইন প্রেজেন্স এর গুরুত্ব অপরিহার্য হয়ে গেছে। অফলাইনে যেমন কাস্টমার পাওয়ার জন্য আপনাকে মার্কেটিং করতে হয়েছে, একইভাবে অনলাইনেও মার্কেটিং করা প্রয়োজন। আপনার বন্ধুর পেজটি এতদিনে সবাই চিনে গেছে, আর আপনি নতুন একটি পেজ নিয়ে এসেছেন। আপনার বন্ধুর পেজ থেকেই তারা পণ্য কিনবে, আপনার পেজে আসার আর কোন প্রয়োজন তাদের নেই। আপনি যে আপনার বন্ধুর থেকে ভালো সার্ভিস দিচ্ছেন, তা তো আপনার অডিয়েন্সদের বুঝাতে হবে, তাদের কাছে আপনার পেজটি রিচ করতে হবে। তাহলে বুঝতেই পারছেন ডিজিটাল মার্কেটিং এর ধারণা কিভাবে এসেছে। আপনার কনসেপ্ট আরো ক্লিয়ার করতে নিজে নিজে একটু ভাবুন।

অফলাইনে যেমন দেখেন, জনসমাগম বেশি আছে এমন জাগায় ৫০০টাকার একটা ব্যানার লাগিয়ে দিলে ওই জাগায় যত লোক আসবে সবার কাছে আপনার বিজনেস পরিচিত হয়ে যাবে। অনলাইনে কিন্তু বিষয়টা এরকম সহজ না। আবার ধরুন, আপনার বিজনেসের সব কাস্টমার মহিলা, যেখানে অধিকাংশ মহিলারাই বাইরে আসে না, তাদের জন্য আপনার ভিন্ন উপায় অবলম্বন করতে হয়। এক্ষেত্রে অনলাইন মার্কেটিং আপনাকে বেশি সুবিধা দিবে। আপনার ধারণা যখন আরো স্পষ্ট হবে তখন বুঝতে পারবেন অফলাইন মার্কেটিং এর তুলনায় অনলাইন মার্কেটিং অনেক বেশি ফলপ্রসূ এবং আপনার মার্কেটিং কস্ট তুলনামুলকভাবে কম।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর গুরুত্ব এবং প্রয়োজনীয়তা

ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা বর্তমানে প্রচুর এবং এই আধুনিক মার্কেটিং প্রক্রিয়ার গুরুত্ব, ব্যবহার, লাভ এবং সুবিধা গুলো কি কি। আপনারা নিচে ভালো করে পড়ে নেওয়ার পর অবশই বুঝতে পারবেন যে, ব্যবসার ক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিং কেন জরুরি।

  • সহজে এবং তাড়াতাড়ি ব্যবসার প্রচার
  • গ্রাহকের সাথে সম্পর্ক তৈরি
  • একসাথে অনেক মানুষের কাছে পৌঁছানো সম্ভব
  • খুব সহজে ক্রেতাদের কাছে পৌঁছানো
  • কম খরচে লাভজনক মার্কেটিং পরিকল্পনার সুবিধা
  • বড় বড় কর্পোরেশন কোম্পানির সাথে প্রতিযোগীতার সুযোগ

ঘরে বসে ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার উপায়

একজন সফল ডিজিটাল মার্কেটার হতে হলে আপনাকে অনলাইনভিত্তিক সকল প্রযুক্তির সাথে কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন করতে হবে। আর এগুলো একদমই কঠিন কিছু না। আপনি যদি বিভিন্ন প্রকার সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে সম্পৃক্ত থাকেন এবং জানেন কিভাবে সেগুলো ব্যবহার করতে হয়, তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর অনেক কৌশলই আপনি নিজে থেকে আয়ত্বে আনতে পারবেন।

কঠোর পরিশ্রম এবং ধৈর্যের সাথে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিংকে নিজের আয়ত্বে আনতে পারবেন। তবে সুসংবাদটি হল ডিজিটাল মার্কেটিং এ দক্ষ হওয়ার জন্য আপনাকে কোন প্রতিষ্ঠানে পড়তে হবে না বা কোর্স করতে হবে না।

ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার জন্য নিচের ৫ টি বিষয়গুলোর ওপর আপনার ভালো ধারণা থাকতে হবে:

  • Search Engine Marketing
  • Content Marketing
  • Social Media Marketing
  • Email Marketing
  • Digital Marketing Analytics Tools
ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ার
ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ার

ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ার

মানুষ এখন অনলাইনে ব্যবসার চেয়ে অনলাইনে ব্যবসা কাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। আর এই জন্য সাধারণত বিশ্বের বড় বড় ব্যবসায়ীরা ডিজিটাল মার্কেটিং এর দিকে নজর দিচ্ছে। বর্তমানে এখনই সময় হচ্ছে নিজেকে একজন পরিপূর্ণ দক্ষ ডিজিটাল মার্কেট হিসেবে তৈরি করে নিজের ক্যারিয়ার গঠন করা।

আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজটা ভাল ভাবে শিখতে পারেন তাহলে এই ক্ষেত্রে আপনার কাজের অভাব হবে না। আপনি ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেসগুলোতেও ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রচুর কাজ পেয়ে যাবেন।যেসব ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলোতে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ পাবেন নিচে সেগুলো উল্লেখ করা হলোঃ

  1. Upwork.com
  2. Freelancer.com
  3. Fivver.com
  4. Toptal.com
  5. Guru99.com

আপনি এই সকল সাইটগুলোতে ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য অসংখ্য কাজ পেয়ে যাবেন। তবে ডিজিটাল মার্কেটিং করে ভাল ক্যারিয়ার গড়তে হলে অবশ্যই আপনাকে আগে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজটা পরিপূর্ণ ভাবে শিখতে হবে। তারপর আপনি এই সকল সাইট গুলোতে গিয়ে কাজের জন্য আবেদন করতে পারেন।

১. সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান (এসইও)

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের প্রাণ হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান তথা এসইও (Search engine optimization)। এসইও হচ্ছে ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজকে সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহারকারীদের সার্চে সামনের দিকে দেখানোর চেষ্টা করা । যার ফলে আপনার ওয়েবসাইট শুরুর দিকে দেখানো হয়।

এসইও এর মাধ্যমে অনলাইন এ কোন প্রতিষ্ঠানের পণ্য বা সেবার ওয়েবসাইটটি গ্রাহকের সামনে আসে। এসইও তে বিভিন্ন ধরণের কাজ থাকে। যেমন কিওয়ার্ড রিসার্স, লিংক বিল্ডিং, আর্টিকেল পাবলিশ, অপপেজ এসইও, অনপেজ এসইও ইত্যাদি।
এসইও সার্ভিস প্রদানের মাধ্যমে আপনি ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন। আপওয়ার্ক, ফাইভার, ফ্রিল্যান্সার ডটকম ইত্যাদি মার্কেটপ্লেসে আপনি এসইও এর সার্ভিস দিতে পারেন। পাশাপাশি বর্তমানে দেশি বিদেশি প্রতিষ্ঠানে এসইও এক্সপার্ট হিসেবে চাকরির প্রচুর চাহিদা রয়েছে।

২. সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

ডিজিটাল মার্কেটিং এর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ শাখা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। খুব সহজেই আপনি এ সেক্টর আপনার ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে পারেন। বর্তমানে সকল প্রতিষ্ঠান তাদের ব্রান্ড, পণ্য বা সেবার প্রচার প্রসারে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর জন্য দক্ষ মার্কেটিং এক্সপার্ট নিয়োগ দিচ্ছে।

ফেসবুক, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম, পিন্টারেস্ট ইত্যাদি মাধ্যমে এই মার্কেটিং হয়ে থাকে। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মাধ্যমে সহজেই গ্রাহকের কাছে পৌঁছানো যায়। সময়ের সাথে সাথে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর জন্য প্রচুর কর্মক্ষেত্র তৈরি হচ্ছে। এছাড়া সকল মার্কেটপ্লেসে এই সার্ভিস প্রদান করা যায়। চাকরির পাশাপাশি মার্কেটপ্লেসে সার্ভিস দিয়ে আপনি প্রচুর অর্থ আয় করতে পারেন।

৩. ইউটিউব মার্কের্টিং

ডিজিটাল মার্কেটিং এ ভিডিও ব্যবহার করে প্রচারণা বড় জায়গা দখল করেছে। টিভিতে বিজ্ঞাপনের মতো বর্তমানে ইউটিউব এ মার্কেটিং খুবই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। আপনি নিজস্ব চ্যানেল পণ্য বা সেবার ভিডিও আপলোড করতে পারেন।
অথবা কোন কোম্পানির ব্রান্ড ভ্যালু ও পণ্য সম্পর্কে জানাতে ইউটিউব ভিডিও বানানো ও প্রচারের জন্য কাজ করতে পারেন। বর্তমানে ভিডিও তথা ইউটিউব মার্কেটিং ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম মাধ্যম। তাই ইউটিউব মার্কের্টিং এ আপনার ক্যারিয়ার শুরু করে স্বাবলম্বী হতে পারেন।

৪. ইমেইল মার্কেটিং

আমরা ইমেইলকে শুধুমাত্র প্রয়োজনীয় তথ্য আদান প্রদানের প্লাটফর্ম হিসেবে ব্যবহার করলেও ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম পার্ট হচ্ছে ইমেইল মার্কেটিং। এই মার্কেটিং নানাভাবে হয়ে থাকে। ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইমেইল সংগ্রহ করা যায়। পরবর্তীতে পণ্য বা সেবা সম্পর্কে জানিয়ে ইমেইল পাঠানোর মাধ্যমে মার্কেটিং করা হয়ে থাকে।

৫. কনটেন্ট বা আর্টিকেল মার্কেটিং

কনটেন্ট মার্কেটিং হলো ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম মাধ্যম। এটি আর্টিকেল অথবা ভিডিওর মাধ্যমে হতে পারে। আর্টিকেল পাবলিশের মাধ্যমে কনটেন্ট মার্কের্টি করা যায়। যে কোন ওয়েবসাইট বা ব্লগ এ আর্টিকেল পাবলিশ এর মাধ্যমে কনটেন্ট মার্কেটিং হয়ে থাকে।

আর্টিকেল রাইটিং, পাবলিশ এবং মার্কেটিং তথা প্রচার ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্তর্ভূক্ত। তাই কনটেন্ট মার্কেটিংকে আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে পারেন অনায়াসে। কনটেন্ট এর চাহিদা কখনো কমে না। প্রতিদিনই নতুন নতুন কনটেন্টের প্রয়োজন হয়। ভবিষ্যতে এই ধারা অব্যাহত থাকবে।

৬. এফিলিয়েট মার্কেটিং

এফিলিয়েট মার্কেটিং হলো ডিজিটাল প্লাটফর্মে অন্যের প্রোডাক্ট প্রমোশনের মাধ্যমে বিক্রয় করা। আপনার ওয়েবসাইট অথবা ব্লগ এবং ভিডিওর মাধ্যমে এফিলিয়েট মার্কেটিং করা যায়। উদাহরণ স্বরূপ আমরা অ্যামাজন এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের কথা বলতে পারি।

এফিলিয়েট মার্কের্টিং কোন প্রতিষ্ঠানের জন্য অথবা নিজেই শুরু করতে পারেন। বর্তমানে এফিলিয়েট মার্কেটিং ক্যারিয়ার হিসেবে সামনের দিকে রয়েছে। ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ার হিসেবে এফিলিয়েট মাকেটিং শুরু করে দিতে পারেন।

৭. সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং (এসইএম) হলো সরাসরি সার্চ ইঞ্জিনে মার্কেটিং। এসইও তে আমরা সরাসরি মার্কেটিং করতে পারি না। কিন্তু সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এ তা সম্ভব। সার্চ ইঞ্জিন এ আমরা কোন কিছু সার্চ দেয়ার সময় অ্যাড তথা বিজ্ঞাপন আকারে শুরু দিকে যে ওয়েবসাইটগুলো দেখা যায় তা সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর অন্তর্ভূক্ত।

এর মাধ্যমে সরাসরি ওয়েবসাইট সার্চ ইঞ্জিন এর শুরুর পেজ এ দেখানো হয়ে থাকে। Google, Yahoo বা Bing ইত্যাদি সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং করা হয়ে থাকে। সহজেই আপনি মার্কেটপ্লেস অথবা যে কোন প্রতিষ্ঠানের জন্য এই সার্ভিসটি দিতে পারেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি
ডিজিটাল মার্কেটিং

এইগুলো পড়তে পারেনঃ-

ডিজিটাল মার্কেটিং টিউটোরিয়াল

বর্তমান সময়ে ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ার খুবই আকর্ষণীয় ও জনপ্রিয়। যার চাহিদা প্রতিনিয়ত ঊর্ধ্বমুখী। আধুনিক ব্যবসার প্রচার ও প্রসারে এর অস্তিত্ব অস্বীকার করার কোন উপায় নেই। সুতরাং ভবিষ্যতে ডিজিটাল মার্কেটিং আরও ব্যাপক আকারে বৃদ্ধি পাবে এটা কোন প্রকার সন্দেহ ছাড়াই বলা যায়।

ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে চান? বাংলাদেশের জনপ্রিয় অনলাইন শিক্ষা প্লাটফর্ম Ghoori Learning এর সাথে Basic Digital Marketing Course টি সম্পন্ন করুন। যা আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ারকে আরো উন্নত, সমৃদ্ধ ও সফল করে তুলবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

1 × five =

Back to top button