কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়

কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়

বর্তমানে বাংলাদেশের টাকা লেনদেনের মাধ্যমগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো বিকাশ । বাংলাদেশের টাকা লেনদেনের জন্য বিকাশ একটি সু-উচ্চ স্থান দখল করে আছে। বাংলাদেশের টাকা লেনদেনের জন্য অনলাইনে অনেক মাধ্যম রয়েছে। যেমন ডাচ বাংলা, রকেট, নগদ ইত্যাদি।

তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে বিকাশ। বিকাশের গ্রাহকরা খুব সহজেই বিকাশ এপস এর মাধ্যমে টাকা খুব দ্রুত লেনদেন করতে পারে।

কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায় তার কয়েকটি ভালো উপায় আজ আপনাদের সাথে আমি শেয়ার করব। প্রত্যেকটি উপায়ই বাস্তবসম্মত ও  সত্যিকার অর্থেই এখান থেকে বিকাশে টাকা আয় করা যায়।

 

কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায় কয়েকটি উৎস আপনাদের সাথে আলোচনা করব

 

বিকাশ এজেন্ট হয়ে আপনি খুব সহজেই বিকাশ থেকে একটি কমিশন ইনকাম করতে পারেন। বিকাশ অফিসে যোগাযোগ করে আপনি আপনার যাবতীয় তথ্যাদি যেমন আপনার আইডেনটিটি ভেরিফিকেশন দিয়ে আপনি খুব সহজেই হয়ে যেতে পারেন বিকাশের একজন এজেন্ট । বিকাশের এজেন্ট হয় আপনি বিকাশ গ্রাহকের টাকা লেনদেন করে লেনদেনের পরিমাণ এর উপর ভিত্তি করে আপনি পেয়ে যেতে পারেন মোটামুটি ভালো একটি কমিশন।

আপনার মাধ্যমে দৈনিক যে লেনদেন হবে সেই লেনদেনের পরিমাণ এর উপর ভিত্তি করে বিকাশ আপনাকে আপনার পারিশ্রমিক দিবে। সে ক্ষেত্রে আপনি খুব সহজেই কোনো পরিশ্রম ছাড়াই বিকাশ থেকে ভাল অঙ্কের একটি টাকা ইনকাম করতে পারেন।

 

রেফার প্রোগ্রাম

বিকাশ এপস রেফার এর মাধ্যমে আপনি মোটামুটি ভাল অঙ্কের টাকা ইনকাম করতে পারেন । বিকাশ অ্যাপ রেফার করে আপনি যদি একজন নতুন গ্রাহক নিয়ে আসতে পারেন তাহলে সে গ্রাহকের জন্য আপনি পেয়ে যাবেন ১০০ টাকা। সেইসাথে গ্রাহক প্রথম মোবাইল রিচার্জ পেয়ে যাবে ২৫ টাকা বোনাস। আপনি যদি প্রতিদিন ১০ জন নতুন ইউজার কে বিকাশে নিয়ে আসতে পারেন আপনার রেফার এর মাধ্যমে তাহলে দেখা যায় আপনি প্রতিদিন ১০০০ টাকা করে ইনকাম করতে পারেন । এভাবে আপনি মাসিক একটি ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

 

আপনি যদি বিকাশে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই নিচের লিঙ্ক থেকে একাউন্ট ঠিক করে নিতে পারেন

6 thoughts on “কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়

আপনার মন্তব্যঃ

%d bloggers like this: