অনলাইনে ইনকাম করার সহজ উপায় ২০২১

সত্যিই অনলাইনে ইনকাম করা যায়?

বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে ইনকাম করার উপায় খুজছেন। আবার অনেকেই অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট থেকে করে সহজে বিকাশে পেমেন্ট পেতে চাইছেন।বাংলাদেশ থেকে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায়গুলো নিয়ে অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনি কি একজন ছাত্র? এই পোষ্টটি তাহলে আপনার জন্যই। আপনি যদি আমাদেরকে ফলো করেন তাহলে আপনি পড়ালেখার বা চাকরির পাশাপাশি অনলাইনে ইনকাম হতে বাড়তি কিছু আয় করতে পারেন। আসলে বর্তমানে অনলাইনে ইনকাম এর জন্য বিভিন্ন মাধ্যম রয়েছে ।

সব গুলোর মধ্য থেকে আমি আজকে আপনাদেরকে দেখাব আপনি সহজে কিভাবে অনলাইনে ইনকাম করা যায়। বর্তমানে প্রযুক্তির এর যুগে মানুষ সকালে ঘুম থেকে উঠার পর থেকে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত প্রযুক্তির উপরে নির্ভরশীল। মানুষের এই প্রযুক্তি ও অনলাইন নির্ভর মানসিকতা ইন্টারনেটে ইনকামের অনেক দার উম্মোচন করেছে। খুব সহজেই মানুষ ভালো একটা পরিমানের অর্থ অনলাইন থেকে আয় করছে। দেশের লাখ লাখ মানুষ এখন এই অনলাইনে ইনকাম (Online Income) এর উপরে নির্ভরশীল।

অনলাইনে ইনকাম

অনলাইনে টাকা ইনকাম করার বিষয়টি ১০ বছর আগে যতোটা কঠিন ছিল, এখন কিন্তু তার থেকে অনেক সহজ। ডিজিটাল বাংলাদেশের দিকে এগিয়ে যাওয়া আমাদের এই প্রাণের প্রিয় বাংলাদেশে বিভিন্ন সমস্যার কারনে আজ থেকে ১০ বছর আগেও অনলাইনে ইনকাম করার বিষয়টি কেউ ভাবতেও পারতো না। কিন্তু সেই স্বপ্ন আজকে সত্যিই প্রমাণিত হচ্ছে। অনলাইন থেকে বর্তমানে মানুষ শুধু অনলাইনে ইনকাম করে এই ইনকাম দিয়েই স্বচ্ছলতা আসছে অনেক পরিবারে।

কিভাবে আপনি অনলাইনে ইনকাম করবেন ?

অনেক লোক রয়েছে যারা অনলাইন হতে প্রতি মাসে ভালোমানের টাকা ইনকাম করছে। আবার এমনো কিছু ব্যক্তি আছে যারা অনলাইনে ইনকাম করে তাদের পরিবারেরে ভরণ-পোষণ সহ বিলাসিতার জীবন যাপন করছে। সত্যি কথা বলতে ঘরে বসে স্বাধীনভাবে নিজের ক্যারিয়ার গড়ার এ সুযোগ কিন্তু খুব কম পেশায় পাওয়া যায়। অনলাইনে ইনকাম করে রাতারাতি কোটিপতি হয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই।

যারা অনলাইনে ইনকাম করতে চান তাদের জন্য প্রায়ই একটা কথা বলি অনলাইন আয় এতটা সহজ উপায় নয়। কিন্তু আবার সেটা বলিনি যে এটা তেমন কঠিন কোন কাজ। আপনি যে কোন মাধ্যম বা উপায় অবলম্বন করে অনলাইনে টাকা আয় করতে চাইলে আপনার অবশ্যই প্রয়োজন হবে দক্ষতার। দক্ষতা বা অভিজ্ঞতা ছাড়া কোন কাজ করলে সেটা থেকে ভাল ফলাফল আশা করা সম্ভব নয়। হোক সেটা অনলাইন বা অফলাইন, ছোট বা বড় যেকোনো ধরনের কাজ। ঠিক তেমনভাবে একটি বিষয়ে ভালো দক্ষতা ছাড়া অনলাইন থেকে টাকা আয় করা সম্ভব হবে না।

আপনাকে ঘরে বসে আয় করার উপায়গুলো বিষয়ে অনেক ভালো অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। যদি কেউ আপনাকে অনলাইনে ইনকাম করার লোভনীয় অফার দেয় তাহলে আপনি তার ফাঁদে পা দিবেন না। আপনি তার অফারকে বিশ্বাস না করে আপনার কাজের প্রতি বিশ্বাস রাখুন। আপনার কাজের প্রতি যদি আপনার অগাধ বিশ্বাস থাকে তাহলে আপনি অনলাইন আর অফলাইন নাই যে কোন কাজে আপনি ভাল করতে পারবেন।

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম

Covid-19 রোগের কারণে আমরা অনেকেই বর্তমানে বাসা থেকে বের হতে পারছি না। এতে একদিকে যেমন প্রতিদিনের যানজট এড়ানো গিয়েছে তেমনি পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথেও আমাদের একটি ভালো বন্ডিং তৌরি হয়েছে। পরিবারকে সময় দিয়ে যেভাবে ফ্যামিলি লাইফটাতে প্রাণ নিয়ে আসতে পারছি তেমনি বাসায় বসেই যদি অনলাইনে ইনকাম করা যায়। সেক্ষেত্রে মন্দ কি!

অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে আপনার যদি ধৈর্য থাকে, এবং আপনি যদি একটি নির্দিষ্ট কাজে পারদর্শী হয়ে উঠতে পারেন, সেক্ষেত্রে অনলাইন থেকে অনেক বড় পরিমানের অর্থ প্রতিমাসে আপনি ইনকাম করতে পারবেন। আপনার লেখা-পড়া বা কাজের ফাঁকে কিংবা চাকরির পাশাপাশি অবসর সময়ে ২/৩ ঘন্টা ব্যয় করে মাসে মোটামুটি ভালোমানের স্মার্ট এমাউন্ট অনলাইনে ইনকাম করতে সক্ষম হবেন।

আধুনিক এই বিশ্বে এখন অফিস আদালত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে প্রায় সকল ক্ষেত্রেই অধিকাংশ কাজ অনলাইনের আওতাভুক্ত হচ্ছে। আগে আপনি যদি কোনো একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির বা চাকরীর জন্য আবেদন করতে যেতেন, সেটি আপনাকে নিজে এসে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফর্ম নিতে হতো।

কিন্তু এখন আপনি দেশের যে কোনো প্রান্তে থেকেই অনলাইনে ভর্তি ফর্ম পূরণ করতে পারবেন। চাকরির আবেদনের ক্ষেত্রেই এই বিষয় এখন। এসব বিভিন্ন জায়াগায় বিভিন্ন কাজ অনলাইনে সম্পাদনের জন্য অনলাইনে ইনকামের বিভিন্ন সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এই কাজ করার জন্য শুধু আপানার প্রয়োজন একটি ডিজিটাল ডিভাইস।

অনলাইনে ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট ২০২১

অনলাইনে ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট নেওয়ার কিছু কৌশল নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করব। আমরা বাংলাদেশীরা যখন অনলাইনে কোন কাজ করে টাকা আয় করতে যাই তখন আমাদের সবার আগে ভাবতে হয় পেমেন্ট মাধ্যম নিয়ে। কারন বাংলাদেশের সব ধরনের পেমেন্ট এভেলেবেল নয়। পেপাল বাংলাদেশে অনুমোদিতও নয়। যার কারণে সকল ধরনের ইন্টারন্যাশনাল সাইটে কাজ করা সম্ভব হয়ে উঠে না।

কিন্তু তাই বলে আমরা পিছিয়ে নেই? আমাদের বাংলাদেশে বিকাশ পেমেন্ট এভেলেবেল। তাই অনলাইনে ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট নিতে তার কৌশলগুলো আলোচনা করব।

বাংলাদেশে বিকাশ এবং ডাচ বাংলা অনলাইন ব্যাংকিং পেমেন্ট চালু আছে। পেওনিয়ার বাংলাদেশে অনুমোদিত যার মাধ্যমে দেশের বাইরের ক্লায়েন্ট এবং মার্কেটপ্লেস থেকে পেমেন্ট গ্রহণ করা যায়।

Payoneer: পেওনিয়ারের রিসিভিং ব্যাংক একাউন্টগুলো দিয়ে আমরা সহজেই দেশের বাইরের ক্লায়েন্ট এবং মার্কেটপ্লেস থেকে পেমেন্ট গ্রহণ করতে পারবো। ঠিক যেভাবে আমরা বাংলাদেশের এক ব্যাংক থেকে আরেক ব্যাংক এ টাকা ট্রান্সফার করি। আপনার ক্লায়েন্ট আপনাকে আমেরিকান ডলার, ইউরো, পাউন্ড, চাইনিজ ইউয়ান, জাপানিজ ইয়েন, অস্ট্রেলিয়ান ডলার, ক্যানাডিয়ান ডলার এবং ম্যাক্সিকান পেসো কারেন্সিতে পে করতে পারবেন। আপনার বিদেশী ক্লায়েন্টদের কাছে পেমেন্টের অনুরোধ পাঠান এবং সরাসরি লোকাল ব্যাংক ট্রান্সফার, ক্রেডিট কার্ড বা এসিএইচ ব্যাংক ডেবিটের মাধ্যমে পেমেন্ট গ্রহণ করুন।

কিভাবে অনলাইনে ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট নিতে হয় তার কৌশলগুলো হলঃ

ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইনে ইনকাম

অনলাইনে আয়ের ক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইনে ইনকাম করার বিষয়টি সবচেয়ে জনপ্রিয়। বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সারদের দক্ষতার ওপর ভিত্তি করে ফ্রিল্যান্সইং কাজের সুযোগ দেয় কয়েকটি ওয়েবসাইট। সেখানে অ্যাকাউন্ট খুলে দক্ষতা অনুযায়ী কাজের জন্য আবেদন করতে হয়। কাজদাতা তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী ফ্রিল্যান্সারদের সাথে যোগাযোগ করে ফ্রিল্যান্সারকে কাজ দেয়।বাংলদেশের বেকারত্ব কমাতে এই খাতটি অনেক বড় ভুমিকা পালন করছে এবং সাথে সাথে অনেক দক্ষ মানুষ এই খাতে কাজ করে আমাদের দেশকে বিশ্ব মানচিত্রে উজ্জ্বল করছে ।

ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে আপনি কত টাকা উপার্জন করতে পারবেন তা আপনার কাজের দক্ষতার উপর নির্ভর করবে। আপনার কাজের মান যত ভাল হবে, ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটে আপনি আরও বেশি কাজ পাবেন এবং আপনি যত বেশি কাজ পাবেন, তত বেশি অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। এখানে আপনার দক্ষতার সাথে আপনার যোগ্যতা প্রমাণ করে কাজের মাধ্যমে যে পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারবেন তার পরিমাণ বাড়াতে হবে।

ফ্রিল্যান্সাররা সাধারণত ঘন্টা, দিন এবং সপ্তাহগুলিতে চুক্তির মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করে। এই ক্ষেত্রে, ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটে যত ভাল অবস্থান, তত বেশি কাজ সে পেতে পারে এবং আরও বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারে।

ফ্রিল্যান্সিং

জনপ্রিয় ৩ টি  ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট

অনলাইনে ইনকামের মার্কেটপ্লেসের মধ্যে বর্তমানে নিচের ৫ টি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সবচাইতে জনপ্রিয়। আপনি এই মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট করে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করতে পারেন।

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

১। ফাইভার – Fiverr.Com

বর্তমানে বিশ্বের সবচাইতে জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস হচ্ছে ফাইভার। বাংলাদেশের অধিকাংশ ফ্রিল্যান্সাররা ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন, লোগো ডিজাইন, ভয়েস রেকর্ড, আর্টিকেল লেখা, ডিজিটাল মার্কেটিং, সোশ্যাল মার্কেটিং সহ আরো বিভিন্ন ধরনের কাজ ফাইভারে কাজ করে। ফাইভারে ৫ ডলার থেকে শুরু করে অনেক উচ্চ মূল্যের প্রজেক্ট পাওয়া যায়।

২। আপওয়ার্ক – Upwork.Com

আপওয়ার্ক বিশ্বের আরেকটি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। এটি প্রথমে ওডেস্ক নামে কার্যক্রম শুরু করে। ২০১৫ সালে সাইটটি ওডেস্ক নাম পরিবর্তন করে আরেকটি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম ‘ইল্যান্স’ আপওয়ার্কের সাথে একীভূত হয়ে আপওয়ার্ক নাম দেয়।

৩। ফ্রিল্যান্সার ডটকম – Freelancer.Com

ফ্রিল্যান্সার ডটকম হচ্ছে একদম প্রথম সারিতে থাকা একটি অনলাইন ভিত্তিক জব মার্কেটপ্লেস, যেখানে ফিক্সড প্রাইস এবং আওয়ারলি রেটের প্রজেক্ট পাওয়া যায়। এখানেও প্রচুর পরিমানে অনলাইন জব পাওয়া যায়।

ওয়েবসাইট থেকে অনলাইন ইনকাম

আপনি খুব ভালো লেখালেখি করতে পারেন? তাহলে আপনি ব্লগ সাইট বানিয়েও সেখান থেকে উপার্জন করতে পারেন। তবে যেকোন বিষয় নিয়ে লিখলেই যে ‘চ্যালচ্যালাইয়া’ টাকা আসতে থাকবে বিষয়টা তা নয়। আপনাকে আপনার টার্গেট অডিয়েন্স/ভিজিটর ধরে রেখে তাঁদের মনের মতো টপিক নিয়ে লেখা লেখি করতে হবে যেন বেশী সংখ্যক মানুষ আপনার ব্লগ/আর্টিকেল পড়ে। ধীরে ধীরে যখন পাঠক বাড়তে থাকবে ততো বেশীই গুগল আপনাকে গুরুত্ব দিবে। আর গুগল আপনাকে গুরুত্ব দেওয়ার অর্থ হচ্ছে যখন কেউ গুগল সার্চ ইঞ্জিন থেকে আপনার লিখা টপিক রিলেটেড কিওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করবে আপনার ব্লগ সাইটের লিংক গুগল সার্চ রেজাল্টের প্রথম পেইজে চলে আসবে।

আর ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন তখন থেকে যখন আপনার ব্লগ সাইট গুগল এডসেন্স প্রগ্রামের জন্য এপ্রুভাল পাবেন। যেমনটা আমাদের ওয়েবসাইটে দেখতে পাচ্ছেন। একবার এপ্রুভাল পাওয়ার পর গুগল এডসেন্সের কোড ব্লগ সাইটে বসানোর প্লেসমেন্ট অনুযায়ী আপনার অডিয়েন্সরা আপনার ব্লগ পেইজে লেখার মাঝে মাঝে, বা সাইটের পাশের সাইডবার এ বিজ্ঞাপন দেখতে পারবে। আর ইউটিউবের মতোই ইমপ্রেশন ও ক্লিকের উপর নির্ভর করে আপনার এডসেন্সে ($) জমতে শুরু করবে।

আপনি চাইলে ইউটিউব থেকে ফ্রিতে ভিডিও দেখে বা ভালো কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে ওয়েব ডিজাইন কোর্স করেও শিখতে পারেন ওয়েব ডিজাইনিং।

ওয়েবসাইট থেকে অনলাইন ইনকামের আরও কিছু উপায়ঃ

  • ওয়েবসাইট সাবস্ক্রিপশন থেকে উপার্জন
  • ডিজিটাল প্রোডাক্ট বানিয়ে উপার্জন
  • এফিলিয়েট মার্কেটিং করে 
  •  ড্রপশিপিং এর মাধ্যমে আয়

YouTube হতে টাকা আয়

বাংলাদেশের অনেক বড় বড় ইউটিউবার আছে। এদের কারো কারো মাসের ইনকাম ২০ থেকে ২৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। আপনিও চাইলেই ইউটিউব ভিডিও বানিয়ে ইনকাম করা শুরু করতে পারেন। ইউটিউব থেকে ইনকামটা আসবে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে।

YouTube হতে আয়

অনলাইনে আয় করার সবচেয়ে সহজ উপায় হচ্ছে YouTube। এখান থেকে যে কোন বয়সের লোক খুবই সহজেই টাকা ইনকাম করতে পারেন। ইন্টারনেট বিশ্বের জনপ্রিয় ১০টি ওয়েবসাইটের মধ্যে YouTube হচ্ছে একটি। আপনি ইচ্ছে করলেই এখান থেকে কম সময় ব্যয় করে অল্প অভীজ্ঞতা নিয়ে মাসে ভালো মানের টাকা অনলাইনে ইনকাম করতে পারেন। এই জন্য আপনাকে প্রথমে বিভিন্ন ভাল মানের ভিডিও YouTube এ আপলোড করতে হবে। ভিডিও তৈরি করার জন্য আপনার মোবাইল ফোনকে ব্যবহার করতে পারেন।

আপনি যদি ভ্রমন প্রিয় লোক হন তাহলে বিভিন্ন সুন্দর সুন্দর প্রকৃতিক দৃশ্যগুলো আপনার মোবাইলের ক্যামেরায় ফ্রেমবন্দী করেও YouTube এ আপলোড করতে পারেন। অথবা আপনি যে বিষয় ভালভাবে জানেন সে বিষয়ে বিভিন্ন ভিডিও টেউটরিয়াল তৈরী করেও কাজটি করতে পারেন।

তবে আপনি যদি একজন দক্ষতা সম্পন্ন ভালো Youtuber হন এবং প্রফেশনাল ভাবে আপনার ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করে থাকেন তাহলে কিছুদিন যাওয়ার পর ভিডিও আপলোড করে প্রতিমাসে ৫০০ থেকে ১০০০ ডলার আয় করা এমন কোন কষ্টের ব্যাপার হবে না। এরপর আস্তে আস্তে যখন আপনার জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে আপনার আয়ের পরিমাণ তত বাড়তে থাকবে। তাই আমি আপনাকে ব্যক্তিগতভাবে সাজেস্ট করবো আপনি যদি অনলাইনে ইনকাম করতে চান তাহলে অবশ্যই ইউটিউব চ্যানেল খোলার চেষ্টা করতে পারেন।

 ছবি বিক্রি করে অনলাইনে ইনকাম

আপনি একজন ভালোমানের ফটোগ্রাফার হলে অনলাইনে ছবি বিক্রি করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনি চাইলে আপনার এই মোবাইলের মাধ্যমে খুব সহজেই অনেক অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

সেক্ষেত্রে আপনাকে শুধু বিভিন্ন আকর্ষণীয় জিনিসের ছবি তুলতে হবে। সেটা আপনি আপনা মোবাইল ফোন দিয়েও তুলতে পারেন আবার ক্যামেরা দিয়েও তুলতে পারেন। তারপর চাইলে একটু এডিট করে অথবা “র” (Raw) ফাইলই বিভিন্ন ওয়েবসাইটে আপলোড করে সেখান থেকে এক একটি ছবির জন্য ৫০ ডলার থেকে শুরু করে ৫০০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারেন।

ছবি বিক্রি করে আয়

আপনার কাছে ভালোমানের ছবি থাকলে সেগুলো ঘরে বসে অনলাইনের বিভিন্ন ছবি শেয়ারিং মার্কেটপ্লেস বা স্টক ইমেজ সাইটগুলোতে আপলোড করে বিক্রি করে দিতে পারবেন।

আপনাকে প্রথমে কোন একটি বা দুটি স্টক ইমেজ মার্কেটপ্লেসে একটি ফ্রি একাউন্ট তৈরি করে সেখানে আপনার ভালোমানের কয়েকটি ছবি আপলোড করতে হবে। ছবি আপলোড করার পর ওয়েবসাইট হতে আপনার ছবিগুলোর কোয়ালিটি, পিক্সেল ও আনুষাঙ্গিক বিষয় যাচাই করার পর তাদের কাছে ভালো মনেহলে, তারা আপনার প্রোফাইল অনুমোদন করবে। আপনার প্রোফাইল অনুমোদন হলে তখন আপনি ছবি আপলোড করতে পারবেন।

অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম

অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনার ধৈর্য এবং কাজের পারদর্শীতা আপনাকে লাখ লাখ টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করতে সাহায্য পারবেন।

আমাদের দেশের বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সার থেকে শুরু করে অনেক মানুষই বর্তমানে অনলাইন ইনকামের সাথে জড়িত। বাংলাদেশের অনলাইন ইনকাম সাইটগুলোর মধ্যেও অনেক ভালো সাইট রয়েছে। এখানে অনলাইন ইনকামের এর সেরা ৪টি উপায় এবং বিভিন্ন অনলাইন ইনকাম টিপস আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি। আপনি কোন পদ্ধতিতে কাজ করতে চাচ্ছেন এটা আপনার সিদ্ধান্ত।

এটা গ্যারান্টি দিতে পারবো না যে আপনি শুরুতেই লাখ লাখ টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন না।  তবে আপনার যদি ধৈর্য থাকে, এবং আপনি যদি একটি নির্দিষ্ট কাজে পারদর্শী হয়ে উঠতে পারেন, সেক্ষেত্রে অনলাইন থেকে অনেক বড় পরিমানের অর্থ প্রতিমাসে আপনি ইনকাম করতে পারবেন। সত্যি কথা বলতে ঘরে বসে স্বাধীনভাবে নিজের ক্যারিয়ার গড়ার এ সুযোগ কিন্তু খুব কম পেশায় পাওয়া যায়।

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে ইনকাম করা যাবে কি ?

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে ইনকাম করা যাবে কি ? এই প্রশ্নের জবাবে আমার উত্তর না না না !! আপনি মোবাইল দিয়ে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন না। কারন এটার বড় উদাহরন আমি নিজে। ইউটিউবের অনেক ভিডিও দেখে ভেবেছিলাম মোবাইল দিয়ে অনলাইনে ইনকাম করব। কিন্তু প্রায় ১ বছরের ইনকাম হল জিরো। তবে এটা বলতে পারি আপনি চাইলে প্রতি মাসে অল্প পরিমান ইনকাম করতে পারেন।

আমি বলছি না যে মোবাইল দিয়ে অনলাইন থেকে একদমই আয় করা যাবে না। অনেক বড় বড় ইউটিউবার রয়েছেন যারা শুধুমাত্র মোবাইল দিয়ে ভিডিও করেই আজকে অনেক লাখ লাখ সাবস্ক্রাইবার ও ভিউস পেয়েছেন। এমনও অনেকে রয়েছেন যারা শুধুমাত্র একটি মোবাইল দিয়েই ফেসবুক একটি পেজ পরিচালনার মাধ্যমে তাদের অনলাইন ব্যবসা দিনকে দিন বড় করেই তুলছেন। 

কিন্তু সত্যি কথা বলতে আপনি যদি সত্যিকার অর্থেই অনলাইন থেকে ভালো আয় করতে চান তাহলে কিন্তু আপনার অবশ্যই একটি ভালো মানের কম্পিউটারের প্রয়োজন পড়বে। তা না হলে আপনার পক্ষে প্রফেশনালভাবে অনলাইনে ইনকাম করাটা অনেকটাই কষ্টকর হয়ে যাবে। 

অনলাইন ইনকামের শেষ কথা

আপনি অনলাইনে ইনকাম বাসায় বসেই শুরু করতে পারেন। আপনার যদি কাজের পারদর্শী থাকেন তাহলে এখনই অবসর সময়গুলো কাজে লাগিয়ে ফেলুন। আর যদি স্কিল ডেভলপমেন্ট এর প্রয়োজন হয় সেক্ষেত্রে ইউটিউব, অনলাইন প্ল্যাটফর্ম কোন একটা সেক্টরে কাজ করছেন এরকম ইন্সট্রাকটর এর কাছে মেন্টরশীপ নিন।

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

আশা করি এই আর্টিকেলটিতে আলোচিত সকল বিষয়ই আপনারা সম্পূর্ণভাবে বুঝতে পেরেছেন। তারপরও যদি কোনো বিষয়ে কোনো প্রশ্ন থাকে সেটি কমেন্ট বাক্সে জানাতে ভুলবেন না। আর এই আর্টিকেলটি যদি আপনার একটুও উপকার করে থাকে তাহলে প্রিয়জনদের কাছে শেয়ার করতে ভুলবেন না। শুভ হোক আপনার অনলাইন ইনকাম যাত্রা।

অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্টের উপায়

গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট পাওয়ার উপায়

মোবাইলে ভিডিও গেম খেলে টাকা আয় বিষয়টা শুনতেও অনেকের কাছে হাস্যকর মনে হতে পারে।টাকা ইনকাম app, গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে ইত্যাদি কিন্তু অনেকেই আবার মোবাইলে লুডু খেলে টাকা আয় করার জন্য বিভিন্ন উপায় খুঁজে বেড়ান। এ ব্যাপারটি তাদের জন্য আশ্চর্যবোধক নাও হতে পারে। কিন্তু যারা লুডু খেলে মোবাইলে অনলাইনে টাকা আয় করার চিন্তা মাথায় নিয়ে ঘুরে বেড়ায় তাদের জন্য আজকের এই পোস্টে আলোচনা করবো কোন কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায়। এছাড়াও আমি মোবাইলে গেম খেলে টাকা আয় করার কয়েকটি উপায় নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করব। মোবাইলে গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য কিছু গেমিং অ্যাপস এর সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা করব।

আমরা পূর্বের আর্টিকেলে গেম খেলে টাকা আয় করার কিছু অস্থায়ী পদ্ধতির কথা আপনাদেরকে জানিয়েছিলাম। কিন্তু আজকের এই পোস্টে আপনাদেরকে আমি জানাবো আপনি কিভাবে চিরস্থায়ী গেম খেলে কিভাবে মোটামুটি ভালো পরিমাণ একটা অর্থ উপার্জন করতে পারেন। কিন্তু এই উপার্জনের জন্য আপনার অবশ্যই প্রয়োজন হবে সামান্য পরিশ্রম ও ভালো ধৈর্যশক্তি । আপনার যদি এই দুটি জিনিসের সমস্যা না হয় তাহলে আপনি আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

আসলে টেকনোলজির উন্নতি হওয়ার সাথে সাথে অনলাইনে ভিডিও গেম খেলার প্রবনতা বেড়েই চলেছে। এক সময় কম্পিউটার গেমগুলো শুধুমাত্র অফলাইনে বসে নিজে নিজে খেলা হত। গেম গুলো সাধারণত বাটন মোবাইলেও খেলা হতো যেমনঃ সাপ, সেটুকু ইত্যাদি । অফলাইনে গেম খেলার আগ্রহ পূর্ব থেকেই ছিল। কিন্তু পরবর্তীতে সেটি অনলাইনে টিমওয়ারী খেলার পদ্ধতি আবিষ্কার করে। এখন অধিকাংশ ভিডিও গেম অনলাইনে বিভিন্ন টিমে বিভক্ত হয়ে খেলা হয়। এ ধরনের গেম এর মধ্যে PUBG, Free Fire গেম বেশ জনপ্রিয় অনলাইন গেম

গেম খেলে টাকা আয় করুন

যারা গেম খেলতে পছন্দ করেন তাদের জন্য আজকের এই পোস্টটি। যারা শখের বসে গেম খেলেন তাদের জন্য আলোচনা করবো কোন কোন গেম খেলে আপনি মোবাইলে টাকা আয় করতে পারবেন। ভিডিও গেম খেলা অনেকের জন্য শখের কাজ হোক সেটা অনলাইনে বা অফলাইনে। সাধারণত যারা সবচেয়ে বেশি গেমস খেলতে পছন্দ করেন তাদের মধ্যে স্কুল কলেজের ছাত্র- ছাত্রীর পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। আবার এমন ধরনের অনেক শিক্ষার্থী রয়েছে গেম খেলার জন্য কলেজের টাইম ক্লাস ফাকি দিয়ে মোবাইলের ভিডিও গেমসের মধ্যে ডুবে যায়।

গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট পাওয়ার উপায়
গেম খেলে টাকা আয়

আপনি হয়তো বা লক্ষ্য করতে পারেন যে, মোবাইলের ভিডিও গেমের কারণে আজকাল ছেলে মেয়েদের মাঠে খেলাধুলার পরিমাণ অনেক কমে গেছে। আজকাল পথে-ঘাটে বের হলে দেখা যায়, ছেলেমেয়েরা ভিডিও গেমসের প্রতি খুব বেশি আসক্ত হয়ে পড়েছে। কানের মধ্যে হেডফোন লাগিয়ে একজন আরেকজনের সাথে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ করার চেষ্টা করে যাচ্ছে গেম খেলার বিষয়ে। আর এ সকল গেমের কারণে ছেলে-মেয়েরা বাস্তব জীবন থেকে দূরে সরে যাচ্ছে। বিষয়টা অনেকটা বিরক্ত লাগার মতই। মাঝে মাঝে মনে হয় এই সকল ছেলে মেয়েরা স্কুল-কলেজ ফাঁকি দিয়ে কেন শুধু গেম খেলে বাবার টাকা নষ্ট করছে। 

বর্তমানে প্রযুক্তির যুগে অনলাইনে ভিডিও গেম খেলার প্রবণতা দিন দিন বেড়েই যাবে। কিন্তু এতে ছেলে মেয়েদের শুধু অপব্যয় ছাড়া আর কিছুই নয়। তাই আজকে আপনাদের সাথে আমি আলোচনা করব ভিডিও গেম খেলে কিভাবে সামান্য পরিমাণ অর্থ উপার্যন করা যায়। আপনার বাবার টাকা নষ্ট এর হাত থেকে আপনি কিছুটা হলেও বাঁচাতে পারবেন। এমনকি আপনার পকেট খরচ যোগাতে পারবেন। 

গেম খেলে টাকা আয় করতে পারবেন যারা 

যারা অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় করতে চান তাদের জন্য প্রায়ই একটা কথা বলি অনলাইন আয় এতটা সহজ উপায় নয়। কিন্তু আবার সেটা বলিনি যে এটা তেমন কঠিন কোন কাজ। আপনি যে কোন মাধ্যম বা উপায় অবলম্বন করে অনলাইনে টাকা আয় করতে চাইলে আপনার অবশ্যই প্রয়োজন হবে দক্ষতার। দক্ষতা বা অভিজ্ঞতা ছাড়া কোন কাজ করলে সেটা থেকে ভাল ফলাফল আশা করা সম্ভব নয়। হোক সেটা অনলাইন বা অফলাইন, ছোট বা বড় যেকোনো ধরনের কাজ। ঠিক তেমনভাবে একটি বিষয়ে ভালো দক্ষতা ছাড়া অনলাইন থেকে টাকা আয় করা সম্ভব হবে না।

আপনাকে গেম খেলে টাকা আয় করতে হলে অবশ্যই আপনার গেম বিষয়ে অনেক ভালো অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। যদি কেউ আপনাকে অনলাইনে আয় করার লোভনীয় অফার দেয় তাহলে আপনি তার ফাঁদে পা দিবেন না। আপনি তার অফারকে বিশ্বাস না করে আপনার কাজের প্রতি বিশ্বাস রাখুন। আপনার কাজের প্রতি যদি আপনার অগাধ বিশ্বাস থাকে তাহলে আপনি অনলাইন আর অফলাইন নাই যে কোন কাজে আপনি ভাল করতে পারবেন।

আমরা যেহেতু আজ অনলাইনে গেম খেলে কিভাবে টাকা আয় করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করছি। তাই আমরা শুধু আজকে গেম খেলে টাকা আয় সার্ভিসটি আপনাকে দিব। আর এই সার্ভিসটি হবে দীর্ঘস্থায়ী এটা কোন ক্ষণস্থায়ী বা অস্থায়ী পদ্ধতি নয়।  আপনাকে অনলাইনে আয় করতে হলে প্রথমেই আপনার ধৈর্য শক্তি ও পরিশ্রম প্রয়োগ করতে হবে।

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য যা লাগবে 

গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য পরিশ্রম ও ধৈর্যশক্তির কথা বাদই দিলাম। কিন্তু এছাড়াও আরো কিছু যন্ত্রপাতি প্রয়োজন হতে পারে আপনার। একটি ভালো গেমিং এন্ড্রয়েড ফোন অথবা গেমিং কম্পিউটার দুটির একটি হলেই হবে। একটি ভালো মানের HD সাপোর্টেড স্ক্রিন রেকর্ড অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনার মোবাইল বা কম্পিউটার স্ক্রিন রেকর্ড করা হবে। এছাড়া অনলাইনে গেম খেলার জন্য প্রয়োজনীয় ইন্টারনেট ডাটা প্যাক। এছাড়া আপনার গেম খেলার অভিজ্ঞতা ছাড়া আর কিছুই প্রয়োজন হবে না।

উপরোক্ত বিষয়গুলো পড়েন এতক্ষণ পর্যন্ত আপনি বুঝে গেছেন যে, গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য আপনাকে একজন বাজে গেমার হতে হবে, বেশি বেশি খেতে হবে। দুঃখিত একটু মজা করলাম আপনাদের সাথে। কারণ গেম খেলার অভিজ্ঞতার উপর নির্ভর করবে আপনার কি পরিমাণ অর্থ উপার্জন হবে। যদি আপনি মনে করেন অনলাইনে গেম খেলার যেসব অ্যাপ্লিকেশন প্লে- ষ্টোরে আছে সেগুলো ইন্সটল করে আপনি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। তাহলে আমি বলব, আপনি এখনও বোকার স্বর্গে বাস করছেন। কিন্তু এটাও বলছি গেমগুলো থেকে আস্থায়ীভাবে সামান্য কিছু অর্থ উপার্জন করতে পারবেন যেগুলো আপনার কোন কাজে আসবে না। তাই আজকের এই পোস্ট আমি তেমন কোনো অ্যাপ্লিকেশন রিভিউ নিয়ে আলোচনা করবো না। আজকে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব গেম খেলে চিরস্থায়ী উপায়ে কিভাবে আয় করা যায়। 

ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপ ও পেজে অনেক সস্তায় পেয়ে যাবেন কিছু পোস্ট যেগুলোতে বলা হয় গেম খেলে আয় করুন ১০০ ডলার, গেম খেলে আয় করুন ৫০ ডলার, এই গেমটি ইন্সটল করি পেয়ে যাবেন ১০ ডলার ইত্যাদি। এসব ধান্দাবাজি আর ফাইজলামী ছাড়া আর কিছুই নয়। তবে অনলাইনে কিছু গেম রয়েছে যেগুলো কম্পিউটার বা মোবাইলে ইন্সটল করার পর কিছু পরিমাণ কয়েন পাওয়া যায়। কিন্তু সেগুলো থেকে যে পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারবেন সেখান থেকে ১০০ ডলার ইনকাম করতে আপনার লেগে প্রায় একবছর। তাই এই বিষয় থেকে দূরে থাকাই ভালো।

১. ইউটিউবে গেম খেলে টাকা আয়

অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় করার সবচেয়ে ভালো ও জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হচ্ছে ইউটিউবিং করা। ইউটিউবে একজন ভালো গেমার খুব সহজেই অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারে। ইউটিউবে গেমারদের প্রচলন রয়েছে। গেমিং চ্যানেল তৈরি করার মাধ্যমে সেখানে ভিডিও আপলোড করে অন্যান্যদের মত খুব সহজেই ভালো একটি ইনকাম করা যায়। সবচাইতে বড় কথা হচ্ছে অন্যান্য ইউটিউবারদের মতো খুব বেশি পরিশ্রম মেধা খরচ করতে হয় না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে একজন গেমার তার ভিডিও রেকর্ড করে টেকনিক্যালি ইউটিউবে আপলোড করতে পারে। তাই সর্বপ্রথম গেম খেলে টাকা আয় করতে হলে একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকা জরুরী। আপনি কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলবেন তার ভিডিও নিচে দেওয়া হলঃ

একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলে আপনি সেখানে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে পারেন। আপনি যে গেমগুলো খেলতে পছন্দ করেন এবং গেমগুলোতে আপনি বেশি দক্ষ মনে করেন সেই গেমগুলোর স্ক্রিন রেকর্ড করে তার ভিডিও আপনি ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন। বন্ধুরা একজন গেমার ইউটিউবার তিনটি উপায়ে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করতে পারে। ভিডিও আপলোড করে ভিডিও মনিটাইজেশনের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন। ভিডিও মনিটাইজেশন করে আপনি অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন। এজন্য আপনাকে আলাদা করে কোন স্ক্রিপ্ট , ভিডিও রেকর্ড করার মতো ঝামেলায় পড়তে হয় না।

বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক জনপ্রিয় ইউটিউব গেমিং ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে যারা প্রচুর পরিমাণ ইনকাম করতে পারেন। বাংলাদেশে থেকে অনেক গেমার প্রায় ১০০০ থেকে ২০০০ ডলার পর্যন্ত ইনকাম করতে পারেন। একজন গেমারকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হয় তার ভিডিওগুলোর কোয়ালিটি উপর। তার ভিডিওগুলোর কোয়ালিটি যেন অন্যদের চাইতে ভাল হয়। ভিডিও কোয়ালিটি যদি ভাল হয় তাহলে ইউটিউবে ভিউয়ার পরিমাণ বেড়ে যায়। আর ভিউ বেড়ে গেলে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট বেড়ে যায়। আর অ্যাডভার্টাইজমেন্ট বেড়ে গেলে বুঝতেই পারছেন আপনার এডসেন্স ভারী হতে থাকবে । ও আরেকটি কথা বলাই হয়নি ইউটিউবে যে পরিমাণ ইনকাম হবে সেই পরিমাণ ইনকাম আপনার গুগোল অ্যাডসেন্সে জমা হবে সেখান থেকে আপনি ব্যাংক অথবা যে কোন মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন। 

ইউটিউব একটি ভালো পার্ট টাইম জব এর মত কাজ করে। একজন গেমারের অনলাইনে আয় করার সবচেয়ে সহজ উপায় যদি খুঁজে তাহলে তা হচ্ছে ইউটিউব। একটু খেয়াল করলেই দেখবেন গেমিং চ্যানেল গুলোর ভিডিও প্রতিদিন মিলিয়ন থেকে মিলিয়ন ভিউজ হয়। কিন্তু সেই তুলনায় খুব বেশি পরিশ্রম করতে হয় । অনলাইন গেম খেলে আয় যে পরিমাণ করা যায় তা জানলে হয়তো আপনার চোখ কপালে উঠে যাবে। শুধুমাত্র ভিডিও গেমস এর মাধ্যমে ইউটিউব থেকে ইনকাম সম্পর্কে ধারণা দেয়ার জন্য বর্তমানে বিশ্বের একটি জনপ্রিয় চ্যানেল উদাহরণ হিসেবে আপনাদের সামনে তুলে ধরা হলো।

T-series ইউটিউবের সবচেয়ে বড় একটি চ্যানেল। এটি ভারতের একটি মিউজিক কোম্পানির পরিচালনায় নিয়ন্ত্রিত। ইউটিউব সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা প্রায় ২০০ মিলিয়ন এর কাছাকাছি। তবে t-series একটি সংগীত মূলক ভারতীয় চ্যানেল। এর পরপরই স্থান দখল করে আছে একটি গেমিং চ্যানেল যার নাম PewDiePie। আর এই চ্যানেলটি একটি জনপ্রিয় গেমিং চ্যানেল। ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইব সংখ্যা হচ্ছে প্রায় ১১৫ মিলিয়ন। এটি একটি গেমিং চ্যানেল যার অবস্থান ইউটিউব থেকে বিশ্বের দ্বিতীয়।

 ইউটিউব চ্যানেলটি শুধুমাত্র গেমিং ভিডিও আপলোড করে। আর এই গেমিং ভিডিও আপলোড করে প্রতিমাসে প্রায় ৫০০,০০০ ডলার পর্যন্ত ইনকাম করে থাকে। এছাড়াও আরও অনেক রকম জনপ্রিয় গেমিং চ্যানেল রয়েছে। তবে আপনি যদি একজন দক্ষতা সম্পন্ন ভালো গেমার হন এবং প্রফেশনাল ভাবে আপনার গেম ইউটিউবে আপলোড করে থাকেন তাহলে কিছুদিন যাওয়ার পর ভিডিও আপলোড করে প্রতিমাসে ৫০০ থেকে ১০০০ ডলার আয় করা এমন কোন কষ্টের ব্যাপার হবে না। এরপর আস্তে আস্তে যখন আপনার জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে আপনার আয়ের পরিমাণ তত বাড়তে থাকবে। তাই আমি আপনাকে ব্যক্তিগতভাবে সাজেস্ট করবো আপনি যদি গেম খেলে টাকা আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই ইউটিউব চ্যানেল খোলার চেষ্টা করতে পারেন।

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

 

২. ব্লগিং করে টাকা আয় 

গেম খেলে টাকা আয় করার আরেকটি জনপ্রিয় মাধ্যম ব্লগিং করা। গেমিং ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করে আই আপনার যদি বিভিন্ন ধরনের গেম সম্পর্কে ভাল অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। তাহলে আপনার নিজের নামে একটি অথবা অন্য কোন ভালো নামে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেন। সেখানে গেম এর রিভিউ লিখে ব্লগিংয়ের মাধ্যমে অনলাইনে হাজার হাজার ডলার ইনকাম করতে পারেন। আপনি চাইলে কোন প্রকার ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই ফ্রিতে ওয়েবসাইট তৈরি করে আয় শুরু করতে পারেন। তবে আপনি চাইলে ডোমেইন- হোস্টিং ক্রয় করে আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন।

লুডু খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট পাওয়ার উপায়
লুডু খেলে টাকা আয়

আপনি আপনার ব্লগে যদি ভাল মানের আর্টিকেল লিখতে পারেন তাহলে সেখানে ভালোমানের ট্রাফিক আসবে আশা করা যায়। গেম খেলে টাকা আয় তাই আপনাকে প্রথমে গেমিং বিষয়ে ভালো পরিমাণ ধারণা থাকতে হবে। কারণ আপনি যে বিষয়ে ব্লগিং করবেন সে বিষয়ে যদি ভাল ধারনা না থাকে তাহলে আপনি ভালো লিখতে পারবেন না। আর ভালো আর্টিকেল লিখতে না পারলে সেখানে ভালো পরিমাণ ট্রাফিক আশা করা যায় না । আর ব্লগিং এ ইনকাম আসে আপনার ট্রাফিক পরিমাণের উপর নির্ভর করে । আপনি জানেন এবং অনেক ভাল জানেন সেগুলো নিয়ে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করুন এবং সেখানে লেখালেখি করা শুরু করুন। আপনি যদি আপনার জ্ঞানের বিষয় সাজিয়ে গুছিয়ে লিখতে পারেন তাহলে সেখানে আপনি অনেক ট্রাফিক আশা করতে পারেন এবং সেই ট্রাফিক থেকে আপনার ব্লগে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে একটি ভালো পরিমাণ ইনকাম করতে পারবেন। 

গেমিং ওয়েবসাইটগুলোতে অনেক ভালো পরিমাণে ট্রাফিক থাকে। কাজেই আপনি যদি জানেন সম্পর্কে অনেক ভালো জানেন এবং সেগুলো নিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করেন তাহলে আপনি খুব সহজেই লেখালেখি করে আয় করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই কনটেন্ট রাইটিং সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। কারণ আপনি যদি গেমের বিষয়ে সাজিয়ে গুছিয়ে লিখতে না পারেন তাহলে একজন পাঠক আপনার রিভিউটি পড়তে চাইবে না। 

বিভিন্ন ওয়েবসাইটে আর্টিকেল লিখে আয়

অন্যের ওয়েবসাইটে ঢুকে সেই ওয়েবসাইটের মধ্যে একটি একাউন্ট করে লেখালেখি করাকে গেস্ট পোস্ট বলা হয়। গেস্ট পোস্ট দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। অনেকে রয়েছে যারা নিজেদের সুবিধার্থে অন্যের ওয়েবসাইট এর মধ্যে গেস্ট পোস্ট করে থাকেন। বিনিময় কোন প্রকার টাকা আয় করতে পারেন না। বিশেষত তারা শুধু নিজের প্রয়োজনে সেই সকল ওয়েবসাইট এরমধ্যে গেস্ট হিসেবে আর্টিকেল পোস্ট করে থাকেন।

শুধুমাত্র গেস্ট পোস্টিং করা ছাড়াও এমন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যেই ওয়েবসাইটগুলোতে জয়েন হয়ে ব্লগ পোস্ট পাবলিশ করতে পারবেন, আর আর্টিকেল লিখে পাবলিশ করার পর প্রতিটি পোস্ট থেকে নির্দিষ্ট পরিমান টাকা তারা আপনার একাউন্টে জমা করে দেবে। এ সকল ক্ষেত্রে একেক ওয়েবসাইট আর্টিকেল এর উপর একেক ধরনের অ্যামাউন্ট পে করে থাকে।

৩. Twitch এ গেমিং ভিডিও আপলোড করে আয়

ইউটিউব এর মত আরেকটি ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে Twitch গেম খেলে টাকা আয় করার আরেকটি জনপ্রিয় মাধ্যম Twitch. তবে এই প্ল্যাটফর্মটিতে সকল ধরনের ভিডিও আপলোড করা হয় না। Twitch এর মধ্যে শুধুমাত্র ভিডিও গেমের লাইভ স্ট্রিমিং ও রেকর্ডকৃত নানা ধরনের গেমিং ভিডিও এখানে আপলোড করা হয়ে থাকে। আপনি যদি ইউটিউব এর মত এরকম একটি জনপ্রিয় প্লাটফর্মে ভিডিও আপলোড করতে পারেন, ইউটিউব এর পাশাপাশি গেমিং ভিডিও আপলোড করে টাকা ইয় করতে পারেন। তাহলে Twitch প্ল্যাটফর্মটি আপনার জন্য সহজ মনে হবে। 

তাছাড়া এখানে আরেকটি চমৎকার ব্যাপার হচ্ছে, ইউটিউবের মত করে Twitch এরমধ্যে এত কঠিন পলিসি নেই। এখানে আপনি ভিডিও তৈরি করে খুব অল্প সময়ের মধ্যে ভিডিও আপলোড করে আয় করা শুরু করতে পারবেন। Twitch থেকে আয় করার জন্য সর্বপ্রথম আপনাকে তাদের হালকা কিছু নিয়ম মেনে কাজ করতে হবে। আর এর জন্য নিচের রিকোয়ারমেন্ট গুলো পুরন হলেই ভিডিও মনিটাইজ করে আয় করা সম্ভব হয়।

  • শেষ এক মাসে যদি আপনার মাত্র ৫০০ মিনিট ওয়াচ টাইম থাকে তাহলেই ভিডিও মনিটাইজ  করে আয় করা শুরু করতে পারবেন।
  • শেষ এক মাসে ৭ টি ভিডিও আপলোড করতে হয়।
  • শুধুমাত্র ৫০ জন ফলোয়ার থাকলে ভিডিও মনিটাইজ করা সম্ভব হয়। কিন্তু ইউটিউব এর ক্ষেত্রে ১০০০ সাবস্ক্রাইবার লাগে।

Twitch প্ল্যাটফর্মটির কথা আপনি হয়তো এবারই প্রথম শুনতে পারেন। কারণ বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষ এ সম্পর্কে খুব একটা জানেনা। কিন্তু গেম স্ট্রিমিং এর জন্য Twitch প্ল্যাটফর্মটি অনেক জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট। তাছাড়াও এখানে আরেকটি মজার ব্যাপার হচ্ছে এখানে অনেক ইন্টারন্যাশনাল গেমারদের সন্ধ্যান পাওয়া যায়। যদি আপনি একজন দক্ষ গেমার হয়ে যান, তাহলে গেম খেলে টাকা আয় করার আরেকটি জনপ্রিয় মাধ্যম Twitch থেকে ইনকাম করতে পারেন। ওয়েবসাইটটির মাধ্যমে ইনজয় করার পাশাপাশি ভিডিও স্ট্রিমিং করে গেম খেলে টাকা আয় করে নিতে পারবেন।

৪. ফেসবুক থেকে টাকা আয়

আমাদের মধ্যে অনেকেই ফেসবুক থেকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় এ সম্পর্কেও google সার্চ করে থাকি। আপনি যদি একজন দক্ষ গেমার হতে পারেন তাহলে আপনি ফেসবুক থেকে আয় করতে পারবেন। আর এই কাজটি করার জন্য আপনার অবশ্যই একটি ফেসবুক পেজ থাকতে হবে। আর সেই ফেসবুক পেজটিতে ভিডিও আপলোড করতে হবে।গেম খেলে টাকা আয় করার আরেকটি জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুক। 

গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট পাওয়ার উপায়
গেম খেলে টাকা আয়

একটি কথা অবশ্যই মনে রাখবেন, শুধুমাত্র একটি নিজস্ব ফেসবুক একাউন্ট খুলে আয় করা কখনোই সম্ভব নয়। আপনাকে একটি নির্দিষ্ট ফেসবুক পেজ খুলতে হবে এবং সেই ফেসবুক পেজটিতে গেমিং ভিডিও আপলোড করতে থাকুন। আপনি চাইলে গেমগুলো লাইভ স্ট্রিমিং করতে পারেন। এতে করে সহজ অনেক বেশি ভিউজ পাবেন। ফেসবুকের নিয়মাবলী অনেকটা ইউটিউব এর মতই। বর্তমানে অনেক গেমার রয়েছে যারা শুধুমাত্র ফেসবুক থেকেই অনেক ভালো পরিমাণ টাকা আয় করছে।

বর্তমানে ইউটিউব এর থেকেও খুব তাড়াতাড়ি সফলতা পাওয়া সম্ভব হবে। কারণ এখানে প্রচুর পরিমাণে একটিভ ট্রাফিক রয়েছে। যার কারণে ভিডিও ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। আপনার যেকোনো একটি ভিডিও যদি ভাইরাল হয়ে যায় তাহলে যে কি পরিমান টাকা ইনকাম হবে। এখানে আরেকটি সুবিধা হচ্ছে আপনি আপনার নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করতে পারবেন। এতে করে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের পাশাপাশি ফেসবুক থেকেও আয় করার মাধ্যমে স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে পারেন। 

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

৫. টুর্নামেন্ট গেম খেলে টাকা আয়

আমাদের মাঝে অনেক মানুষ রয়েছেন যাদের গেমিং টুর্নামেন্ট খেলার প্রতি অনেক আগ্রহ রয়েছে। আর এই গেমিং টুর্নামেন্ট বর্তমানে অনলাইনের পাশাপাশি অফলাইনেও খেলা হয় থাকে। বিশেষত বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় গেম PUBG, Free Fire এবং Call of Duty এর টুর্ণামেন্ট নানা রকমের সাইবার ক্যাফেতে আয়োজন করা যায়। এছাড়াও এসকল  গেম গুলোর মধ্যে রেজিস্ট্রেশন করে অনলাইনে এন্ট্রি ফি দাখিল করে টিমওয়ারি গেম খেলে টাকা আয় করা যায়।

গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট পাওয়ার উপায়
গেম খেলে টাকা আয়

যদি আপনি অনেক দক্ষতা সহকারে PUBG খেলতে পারেন  অথবা যদি আপনি নিজেকে একজন PUBG এক্সপার্ট মনে করেন, তাহলে  অনলাইনের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করে বিভিন্ন দলের সাথে পাবজি খেলে ঘরে বসে টাকা আয় করে নিতে পারবেন। তবে একটি কথা মনে রাখবেন এন্ট্রি ফ্রি দেওয়ার পর খেলায় যদি আপনি হারেন, তাহলে আপনি আপনার  সেই এন্ট্রি ফি ফিরে পাবেন না।

এরকম ধরনের গেমের ক্ষেত্রে আপনি এক্সপার্ট না হলে অংশগ্রন করবেন না। কারণ বর্তমানের এই কম্পিটিশনের যুগে অনেক দক্ষতা সম্পন্ন গেমার  অনলাইনে রয়েছেন যারা আপনার থেকেও অনেক বেশি দক্ষতা সম্পন্ন হয়। কিন্তু আপনি একজন দক্ষতা সম্পন্ন গেমার হয়ে উঠতে পারেন  এবং সবসময় টুর্ণামেন্ট জিতে পারেন তাহলে গেমিং এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

শেষ কথা

আসলে আপনার যদি গেমের প্রতি প্রচুর আগ্রহ এবং দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি উপরের মাধ্যমগুলো ছাড়াও আরো বিভিন্ন উপায় বা মাধ্যম ব্যবহার করে গেম খেলে টাকা আয় করতে পারবেন। যেহেতু বর্তমান সময়ে গেমিং এর ক্ষেত্রে ইউটিউব এবং ফেসবুকে এগিয়ে। তাই আপনি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করার পাশাপাশি সেইটা আবার ফেসবুকে আপলোড করা শুরু করে দিন। তারপর আস্তে আস্তে আপনার জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির পাশাপাশি আপনি নিজেই গেমিং এর মাধ্যমে ভালো পরিমাণে টাকা আয় করতে সক্ষম হবেন।

গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট নিতে আপনার তেমন কোন কষ্ট হবে না । আপনি চাইলে গেম খেলে টাকা আয় করে সেই টাকা ব্যাংক এ জমা করে যখন- তখন বিকাশে পেমেন্ট নিতে পারেন।

মনে রাখবেন গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য আপনি আপনার জীবনের মূল্যবান সময় নষ্ট করবেন না । এতে আপনার পরবর্তী জীবনের জন্য অভিশাপ হয়ে দাঁড়াবে ।

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

আমি কোন ইসলামিক চিন্তাবিদ নই তাও বলতে পারি, কম্পিউটার বা মোবাইল এর মাধ্যমে গেম খেলে টাকা আয় করা অবশ্যই ঠিক নয়। কারণ যেসব খেলায় শারীরিক বা মাংসিক কোন পরিশ্রম নাই, সেইসব খেলা করে টাকা উপার্জন করা উচিত না। অর্থাৎ আমাদের উচিত গেম খেলে টাকা উপার্জন না করে কাজ শিখে চিরস্থায়ী টাকা আয়ের হোক অনলাইন অথবা অফলাইন উপায় অবলম্বন করা। এক্ষেত্রে আপনি আমার দেখানো দুইটি উপায় অবলম্বন করতে পারেন। আমাদের লিখাটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ ।

গেম খেলে টাকা আয় 2021 -Quiz Game BD

BD Earning Quiz Game in Bangladesh. খুব সহজে গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য মনোযোগ সহকারে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য অনু্রোধ করা হল ।

 

আজ আপনাদের সাথে আলোচনা করবো Quiz Game BD ও কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 2021 এবং সেই টাকা বাংলাদেশে আনা যায়। টাকা ইনকাম apps নিয়েও আলোচনা করব আপনাদের সাথে। আমি আপনাদের সামনে গেমস দিয়ে কিভাবে অল্প পরিমাণ ইনকাম করা যায় সেই বিষয়ে আলোচনা করব। আপনারা গেম খেলে কিছু পরিমাণ আনন্দ উপভোগ করেন। সেই আনন্দকে আরও দ্বিগুন করতে সামান্য পরিমাণ অর্থ উপার্জনের রাস্তা আমি আপনাদেরকে দেখাবো। কিন্তু এমনটা ভাববেন না যে গেম খেলে আপনি আপনার সম্পূর্ণ খরচ চালিয়ে দিব। কিন্তু হ্যাঁ এটা বলতে পারি সামান্য পরিমাণ মোবাইল রিচার্জ , বিল পেমেন্ট করা সহ আরো অল্প পরিমাণে কিছু সুবিধা আপনি পেতে পারেন।

 

আমি আজ ৫ টি গেম থেকে কিভাবে অল্প পরিমাণ অর্থ ইনকাম করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করব। ধৈর্য সহকারে সম্পূন্ন আর্টিকেলটি পড়ার জন্য অনুরোধ করছি।

 

আপনাদের উদ্দেশে লিখা Best Quiz Game BD থেকে অল্প পরিমান ইনকামের কিছু কৌশলঃ

 

১. Jitun – Best Bangla Quiz Game

বাংলা কুইজ গেম (Quiz Game BD) আর মিনি গেইম অ্যাপ। যেখানে আপনি অফলাইনে প্রাকটিস এবং অনলাইনে অন্য প্লেয়ারদের সাথে কন্টেস্ট খেলতে পারবেন।

আরো আছে কিছু ব্রেন গেম, যেগুলা মস্তিষ্কের রেসপন্স টাইম, স্পিড, মনোযোগ, তাৎক্ষণিক কোন সমস্যার সমাধান, সুপরিকল্পিত চিন্তার বিকাশে সাহায্য করবে, ভবিষ্যতে আমরা এমন অনেক গেমস অ্যাড করব যদি প্লেয়ারদের ভাল সাড়া পাই,

কত ধরনের Quiz Game BD কুইজ আছে ?
– শুরুতে ৩০ টি টপিকের উপর কুইজ থাকছে, পরবর্তীতে প্লেয়ারদের ডিম্যান্ড অনুযায়ী আর কুইজ টপিক অ্যাড করা হবে। কিছু টপিক বি সি এস / অন্যান্য সরকারি বেসরকারি চাকুরির পরীক্ষার প্রিপারেশনে/ ভার্সিটির অ্যাডমিশনের বা IELTS/GRE প্রস্তুতিতে সাহায্য করবে।

Quiz Game
জিতুন

আরো কিছু টপিক নিতান্তই মজার জন্য, যেগুলা আপনার একঘেয়েমি দূর করবে, আপনার অনেক পছন্দের টপিকের উপরে এই কুইজ গুলো আপনাকে আনন্দ দিবে,

সাইজ কত ?
– ১০ মেগাবাইটের কম!

 

২. কুইজ বাংলা (Quiz Game BD) – GK in Bangla

কুইজ বাংলা গেইম টিতে জি.কে এবং কুইজ প্রশ্ন রয়েছে যেমন : সাধারন জ্ঞান , বিজ্ঞান , বই , বিশ্ব , খেলা ধুলা , ইতিহাস , আন্তর্জাতিক , রাজনীতি , অর্থনীতি , বর্তমান পরিস্থিতি ইত্যাদি এবং বিভিন্ন সরকারি চাকুরীর পরীক্ষা এবং প্রতিযোগিতা পরীক্ষার জন্যও এই গেমস টা সহায়ক – ব্যাংক পরীক্ষা, ইউপিএসসি, আইএএস, বিসিএস , এসএসসি , ডব্লিউ.বি.সি.এস , এইচএসসি , রেলওয়ে পরীক্ষা , এসবিআই এবং আইবিপিএস।

গেম গাইড :
==> এই গেমটিতে ১০টি লেভেল আছে
==> লেভেল ৪ পর্যন্ত প্রত্যেক প্রশ্ন এর জন্য ৩০ সেকেন্ড থাকবে
==> লেভেল ৪ এর পর প্রত্যেক প্রশ্ন এর জন্য ৬০ সেকেন্ড থাকবে
==> সঠিক উত্তর জানার জন্য ২ টি লাইফলাইন

ফিচার ঃ
==> দারুন গ্রাফিক্স
==> ওফ লাইন – ইন্টারনেট সংযোগের প্রয়োজন নেই
==> প্রচুর MCQ প্রশ্ন

 আরও পড়ুনঃ-

      কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
    মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
    কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
     গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

 

৩. বিডি অনলাইনে অর্থ উপার্জন করুন (Quiz Game BD)

অর্থ বিডি অর্জন করুন বিশ্বের বৃহত্তম অর্থ উপার্জনের অ্যাপ্লিকেশন। আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এই অ্যাপ্লিকেশন সম্পূর্ণরূপে বিনামূল্যে। আর্ন মনি বিডি অ্যাপ্লিকেশনটিতে যোগদান করুন এবং অনলাইনে অর্থ উপার্জন করুন(Quiz Game) দিয়ে।

আমাদের সম্পর্কে: আমরা একটি সংস্থা যেখানে আপনি নিখরচায় যোগদান করতে পারেন। এবং আপনি আমাদের অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে উপার্জন করতে পারেন। আপনি যদি চান, আপনি আপনার বন্ধুদের সাথে আমাদের অ্যাপ্লিকেশন ভাগ করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

লাকি স্পিন: Quiz Game খেলে ভাগ্যবান পিনের মাধ্যমে পয়েন্ট অর্জন করুন। এবং ১০ স্পিন শেষ করার পরে উপার্জন করুন। আপনি প্রতি মিনিট ১ বার পরে একবার স্পিন সম্পূর্ণ করে স্পিনটি সম্পূর্ণ করতে পারেন। বোনাস বোতামটি ক্লিক করে আপনি যে বোনাস পেয়েছেন তার দ্বিগুণ করার জন্য আপনি একটি বিজ্ঞাপন দেখতে পাবেন। আপনি যদি বোনাস দ্বিগুণ করতে না চান তবে আপনি সংগ্রহ বোতামটি ক্লিক করে বোনাস নিতে পারেন।.১০ স্পিন শেষ করার পরে আপনি একটি অফার পাবেন। আপনি যদি অফারটি সম্পূর্ণ করেন তবে আপনি ০.০১ ডলার পাবেন। আপনি প্রতি ১ ঘন্টা পর একটি অফার পাবেন।

আপনি প্রতিদিন ভিডিও দেখে পয়েন্ট অর্জন করতে পারেন। আপনি প্রতিটি ভিডিও দেখার জন্য ১০ পয়েন্ট পাবেন। ১০ টি ভিডিও দেখার পরে, আপনি এমন অফার পাবেন যা আপনি সম্পূর্ণ করলে আপনি ০.১০ ডলার পাবেন । আপনি প্রতি ১ ঘন্টা একটি কাজ সম্পন্ন করতে সক্ষম হবেন।

Quiz Game
BD Earning

ম্যাথ কুইজ Quiz Game BD : প্লে ম্যাথ ক্যুইজের মাধ্যমে পয়েন্ট অর্জন করুন। এবং ১০ কুইজ শেষ করে উপার্জন করুন। আপনি প্রতি মিনিটে ১ মিনিট পরে আবার একটি কুইজ শেষ করতে পারেন। বোনাস বোতামটি ক্লিক করে আপনি যে বোনাস পেয়েছেন তার দ্বিগুণ করার জন্য আপনি একটি বিজ্ঞাপন দেখতে পাবেন। আপনি যদি দ্বিগুণ করতে চান না। বোনাস, আপনি সংগ্রহ বোতামটি ক্লিক করে বোনাস নিতে পারেন। ১৫ কুইজ শেষ করার পরে আপনি একটি অফার পাবেন। আপনি যদি অফারটি সম্পূর্ণ করেন তবে আপনি ০.১০ ডলার পাবেন প্রতি ১ ঘন্টা আপনি একটি অফার পাবেন।

✅পয়েন্ট পলিসি: আপনি আমাদের অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে কাজ করে পয়েন্টগুলি অর্জন করে মূল ব্যালেন্সে রূপান্তর করতে পারেন। পয়েন্ট হারের উপর নির্ভর করে ডলার প্রদান করা হবে। সাধারণত ১০০০ পয়েন্ট সমান $০.০৫ পয়েন্ট ব্যালেন্সে ক্লিক করা পয়েন্টগুলি মূল ব্যালেন্সে রূপান্তরিত করে।

রেফার নীতি: আপনি সহজেই আপনার বন্ধুদের সাথে আমাদের অ্যাপ্লিকেশন ভাগ করে অর্থোপার্জন করতে পারেন। আপনি রেফারেল প্রতি $ ১.০০ পাবেন। যখন কেউ আপনার রেফারেল কোডটি ব্যবহার করে কোনও অ্যাকাউন্ট খোলেন, আপনি $ ১.০০ বিনামূল্যে পান। যখন আপনার রেফারার প্রথমবারের জন্য অর্থ প্রদানের অনুরোধ জানায়, আপনি আপনার বন্ধুর মাধ্যমে যে রেফারাল বোনাসটি পান তা রেফারাল ব্যালেন্স থেকে মূলটিতে স্থানান্তরিত হবে। ভারসাম্য। তবুও আপনি ২০% রেফারেল কমিশন পাবেন। আপনি সর্বদা আপনার রেফারেল আয়ের ২০% পাবেন।
প্রদানের নীতি: আপনি আমাদের মাধ্যমে অর্থ প্রদান করতে সক্ষম হবেন। আমরা সাধারণত পেপাল, বিটকয়েন, পেটিএম এবং বিকাশের মাধ্যমে অর্থ প্রদান করি। আপনি আমাদের কাছ থেকে প্রতিদিন পেমেন্ট নিতে পারেন। সর্বনিম্ন প্রদানের অনুরোধ $ 2 পেপাল, $ ২ বিটকয়েন, $ ২ পেটিএম, $ ২ বিকাশ।

ব্যবহারকারী নীতি: আমরা কেবল আমাদের অ্যাপ ব্যবহারের জন্য অর্থ প্রদান করি। আমরা কোনও ব্যবহারকারীর ডেটা চুরি করে বা আমাদের অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে কোনও ব্যবহারকারীর ক্ষতি করি না। আমরা চাই সমস্ত ব্যবহারকারীরা আমাদের অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহারের জন্য অর্থ প্রদান করুন। আপনি বিশ্বের যে কোনও দেশ থেকে আমাদের অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারেন।

 

৪. Earning BD (Best Quiz Game BD)

Quiz Game এই অ্যাপ্লিকেশনটি প্রায় উপার্জনযোগ্য। এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে টাস্ক সম্পূর্ণ করার মাধ্যমে লোকেরা প্রচুর পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারে। প্রথমত আপনি আর্নিংয়ের শুরু বাটনে ক্লিক করুন তারপরে আপনি আবেদনে প্রদত্ত সমস্ত টাস্কগুলি পূরণ করতে পারবেন। সমস্ত টাস্ক সম্পূর্ণ করার পরে আপনার পয়েন্টগুলি পেতে ফিনিশ বোতামটি ক্লিক করতে হবে। ২০০ পয়েন্টের পরে আপনি রেডিম বাটনে ক্লিক করতে পারেন এবং আপনার বিকাশ বা পেমেন্ট নম্বর এবং আপনার পয়েন্ট লিখতে হবে। সমস্ত তথ্য লেখার পরে আপনার টাকা পয়সা পাওয়ার জন্য উইথড্রা বাটনে ক্লিক করতে হবে। ২৪ ঘন্টা জমা দেওয়ার সাথে সাথে আপনি আপনার অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। যদি আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনটির বিষয়ে কোনও অভিযোগ করেন তবে সহায়তা বোতামে ক্লিক করার পরে সহায়তা বটনে ক্লিক করুন আপনি বিকাশকারীদের জিমেইলটি দেখতে পাবেন। আপনি এই Gmail এর মাধ্যমে যেকোন সময় ডেভেলপারের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

 আরও পড়ুনঃ-

      কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
    মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
    কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
     গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

 

 

৫. (Quiz Game BD) Best মোবাইল গেমিং

প্রতি সপ্তাহে শত শত ডলারের জন্য পুরষ্কার জিতে নিন গেম পুরস্কারগুলিতে ১০০% ফ্রি গেম খেলে টাকা আয়।

গেমটি একটি নিখরচায় মোবাইল গেমিং অ্যাপ্লিকেশন যা ব্যবহারকারীদের ফ্রি ভিডিও গেম খেলে উপার্জন করতে পারবেন, অ্যাপ্লিকেশন কোনও ক্রয়ের প্রয়োজন নেই, জয়ের জন্য কোনও অর্থ প্রদান নয়!

একটি অ্যাপ্লিকেশনে +৭০ বিভিন্ন গেম খেলুন, ফরচুনের হুইলটি ঘুরান, প্রতিদিন তাত্ক্ষণিকভাবে উপার্জনের জন্য প্রতিদিনের টিকিট লিডারবোর্ডে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করুন বা লাকি গেমসে প্রতি ৪ ঘন্টা ১০০ জিতে অংশ নেবেন, নিখরচায়!

এটা কিভাবে সম্ভব? গেমি বিজ্ঞাপন থেকে আমাদের উপার্জনটি কেবল শেয়ার করে, এবং এটিকে খেলোয়াড়দের জন্য বিনামূল্যে বাস্তব পুরষ্কার এবং পুরষ্কারে রূপান্তরিত করে। আমরা যত বেশি উপার্জন করব, তার পুরষ্কারগুলি আরও বেশি এবং আমাদের প্রতিদিন আরও বেশি বিজয়ী থাকতে পারে! গেম পুরস্কারগুলিতে ১০০% ফ্রি গেম খেলে টাকা আয়।

শীর্ষ আরকেড গেমস, ধাঁধা, দ্রুত এবং মজাদার উপভোগ করুন। +০+ ভিন্ন গেমের সাথে আমরা প্রতি মাসে পুরষ্কার জিততে আরও নতুন উপায় নিয়ে নতুনকে নিয়ে আসি!

গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট পাওয়ার উপায়
গেম খেলে টাকা আয়

আমি প্রতি সপ্তাহে কিভাবে জিততে পারি?
নিখরচায় টিকিট সংগ্রহ করুন এবং আপনি রবিবারের ড্রয়গুলিতে প্রতিমাসে প্রদত্ত + $ ৫.০০০ প্রদানের ক্ষেত্রে আপনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে অংশ নেবেন!
প্রতি সপ্তাহে শত জন বিজয়ীর সাথে রিগ্রেট বিগ মানি পুরস্কার জিতুন!  প্রতি ২৪ ঘন্টা জিতে প্রতিদিনের টিকিট লিডারবোর্ডে প্রতিযোগিতা করুন।
প্রতি ৪ ঘন্টা তাত্ক্ষণিক পুরস্কার জিততে লাকি গেমসে বা Quiz Game যোগদান করুন।

আমি কীভাবে টিকিট পাব?
আমাদের ফ্রি গেমস এবং সম্পূর্ণ গেম মিশন খেলুন
ফরচুনের চাকা স্পিন করুন এবং টন টিকিট এবং বিনামূল্যে পুরষ্কার জিতুন
প্রচুর টিকিট এবং বিনামূল্যে রিয়েল ডলার পেতে বন্ধুদের আমন্ত্রণ জানান
✔ স্তর বাড়ান এবং একটি টিকিট গুণক অর্জন করুন এবং প্রতি গেমপ্লেতে আরও 4x টিকিট জিতুন!

আরও টিকিট = বিনামূল্যে প্রকৃত নগদ পুরস্কার জয়ের উচ্চতর সুযোগ।

আমাদের ফ্রি গেমস খেলুন এবং একক ডলার ব্যয় না করে ভাগ্যবান ড্রয়ায় বাস্তব জিতুন Quiz Game BD। কোনও অ্যাপ্লিকেশন ক্রয় এবং জেতার জন্য কোনও অর্থ প্রদান নেই। সেরা তৈরীর গেমগুলির সাথে মজা করার সময় পুরষ্কার, পুরষ্কার এবং উপার্জনের সুযোগগুলি আশা করুন!

প্রতিদিন গেমটিতে আসুন, আপনার বন্ধুবান্ধবগুলিকে আপনার পুরষ্কার তৈরির দলে আনুন এবং প্রতিটি আমন্ত্রনের সাথে একসাথে বিনামূল্যে বাস্তব পুরষ্কার জিতুন! Quiz Game আসল জয়ের জন্য ফ্রি গেমস খেলার আরও ভাল উপায় আর নেই!

 আরও পড়ুনঃ-

      কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
    মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
    কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
     গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

 

বাস্তব অর্থ পুরষ্কার জিতে নিন Quiz Game খেলে: প্রতিদিন বড় জয় করার সুযোগ আছে! বিশেষত, রবিবার!
টিকিট সংগ্রহ করুন: কেবলমাত্র বিনামূল্যে গেম খেলে এবং মিশনগুলি শেষ করে আপনি আসল পুরষ্কার জেতার জন্য টিকিটে পুরষ্কার পাবেন! প্রতিদিন আরও অনেক বেশি টিকিট উপার্জনের জন্য বন্ধুদের আমন্ত্রণ জানান।
বিনামূল্যে অর্থ গেমস: আমাদের সমস্ত গেম বিনামূল্যে, এবং আমরা প্রতি মাসে নতুন আসল পুরষ্কার গেমস নিয়ে আসি।
🎁 দৈনিক পুরষ্কার: আপনাকে প্রচুর টিকিট জয়ের আরও বেশি সুযোগ দেওয়ার জন্য প্রতিদিন নতুন মিশন এবং বড় পুরষ্কার পাওয়া যায়।

 

কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়

বর্তমানে বাংলাদেশের টাকা লেনদেনের মাধ্যমগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো বিকাশ । বাংলাদেশের টাকা লেনদেনের জন্য বিকাশ একটি সু-উচ্চ স্থান দখল করে আছে। বাংলাদেশের টাকা লেনদেনের জন্য অনলাইনে অনেক মাধ্যম রয়েছে। যেমন ডাচ বাংলা, রকেট, নগদ ইত্যাদি।

তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে বিকাশ। বিকাশের গ্রাহকরা খুব সহজেই বিকাশ এপস এর মাধ্যমে টাকা খুব দ্রুত লেনদেন করতে পারে।

কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায় তার কয়েকটি ভালো উপায় আজ আপনাদের সাথে আমি শেয়ার করব। প্রত্যেকটি উপায়ই বাস্তবসম্মত ও  সত্যিকার অর্থেই এখান থেকে বিকাশে টাকা আয় করা যায়।

 

কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায় কয়েকটি উৎস আপনাদের সাথে আলোচনা করব

 

বিকাশ এজেন্ট হয়ে আপনি খুব সহজেই বিকাশ থেকে একটি কমিশন ইনকাম করতে পারেন। বিকাশ অফিসে যোগাযোগ করে আপনি আপনার যাবতীয় তথ্যাদি যেমন আপনার আইডেনটিটি ভেরিফিকেশন দিয়ে আপনি খুব সহজেই হয়ে যেতে পারেন বিকাশের একজন এজেন্ট । বিকাশের এজেন্ট হয় আপনি বিকাশ গ্রাহকের টাকা লেনদেন করে লেনদেনের পরিমাণ এর উপর ভিত্তি করে আপনি পেয়ে যেতে পারেন মোটামুটি ভালো একটি কমিশন।

আপনার মাধ্যমে দৈনিক যে লেনদেন হবে সেই লেনদেনের পরিমাণ এর উপর ভিত্তি করে বিকাশ আপনাকে আপনার পারিশ্রমিক দিবে। সে ক্ষেত্রে আপনি খুব সহজেই কোনো পরিশ্রম ছাড়াই বিকাশ থেকে ভাল অঙ্কের একটি টাকা ইনকাম করতে পারেন।

 

রেফার প্রোগ্রাম

বিকাশ এপস রেফার এর মাধ্যমে আপনি মোটামুটি ভাল অঙ্কের টাকা ইনকাম করতে পারেন । বিকাশ অ্যাপ রেফার করে আপনি যদি একজন নতুন গ্রাহক নিয়ে আসতে পারেন তাহলে সে গ্রাহকের জন্য আপনি পেয়ে যাবেন ১০০ টাকা। সেইসাথে গ্রাহক প্রথম মোবাইল রিচার্জ পেয়ে যাবে ২৫ টাকা বোনাস। আপনি যদি প্রতিদিন ১০ জন নতুন ইউজার কে বিকাশে নিয়ে আসতে পারেন আপনার রেফার এর মাধ্যমে তাহলে দেখা যায় আপনি প্রতিদিন ১০০০ টাকা করে ইনকাম করতে পারেন । এভাবে আপনি মাসিক একটি ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

 

আপনি যদি বিকাশে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই নিচের লিঙ্ক থেকে একাউন্ট ঠিক করে নিতে পারেন

কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় বিকাশে 2021

গেম খেলে টাকা আয় করার কিছু তথ্য

আমরা যারা অনলাইন থেকে গেম খেলে টাকা আয় করতে চাই তাদের জন্য ভালো কয়েকটি অ্যাপস আমি শেয়ার করবো। আপনি যদি লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম অথবা কিভাবে অনলাইন থেকে আয় করা যায় বুঝে না থাকেন তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। অনেকেই আছে যারা অনলাইন থেকে গেম খেলে টাকা আয় করা যায় বিশ্বাস করেন না আবার অনেকেই আছে যারা ভাবেন অনলাইন ইনকাম ভুয়া। সত্যি কথা বলতে কিন্তু ঠিক এমন না। আপনি গেম খেলে প্রতিদিন ২০০-৩০০ টাকা আয় করুন পেমেন্ট নিন বিকাশে সবটায় সম্ভব হবে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়লে।

আপনি যদি এই নিউজটি পড়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আমি ধরে নিব আপনি একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল থেকেই এই নিউজটি পড়ছেন। কেননা শতকরা প্রায় ৮৩ শতাংশ মানুষ মোবাইল ফোন ইউজ করে ইন্টারনেট সংযোগ দেন। তার মধ্যে একটি তথ্যমতে, ১৮ থেকে ২৪ বছর বয়সের মধ্যে শতকরা ৭০ শতাংশ মানুষ তাদের নিজস্ব মোবাইল ফোনে কোন গেম অ্যাপ ইন্সটল করে গেম খেলতে পছন্দ করে। আপনি যদি গেম খেলতে পছন্দ করেন তাহলে গেম খেলে টাকা আয় করতে পারলে কেমন হয় । চলুন জেনে নিই , কিভাবে গেম খেলে টাকা আয় করা যায়।

আজ আপনাদের সাথে আলোচনা করবো কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় এবং সেই টাকা বাংলাদেশে আনা যায়। টাকা ইনকাম apps নিয়েও আলোচনা করব আপনাদের সাথে।

আমি আপনাদের সামনে গেমস দিয়ে কিভাবে অল্প পরিমাণ ইনকাম করা যায় সেই বিষয়ে আলোচনা করব। আপনারা গেম খেলে কিছু পরিমাণ আনন্দ উপভোগ করেন। সেই আনন্দকে আরও দ্বিগুন করতে সামান্য পরিমাণ অর্থ উপার্জনের রাস্তা আমি আপনাদেরকে দেখাবো। কিন্তু এমনটা ভাববেন না যে গেম খেলে আপনি আপনার সম্পূর্ণ খরচ চালিয়ে দিব। কিন্তু হ্যাঁ এটা বলতে পারি সামান্য পরিমাণ মোবাইল রিচার্জ , বিল পেমেন্ট করা সহ আরো অল্প পরিমাণে কিছু সুবিধা আপনি পেতে পারেন।

আমি আজ তিনটি গেম থেকে কিভাবে অল্প পরিমাণ অর্থ ইনকাম করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করব। ধৈর্য সহকারে সম্পূন্ন আর্টিকেলটি পড়ার জন্য অনুরোধ করছি।

আজ আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করবো কোন কোন গেম খেলে কি পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারেন। সে বিষয়ের ধারাবাহিকতা নিয়ে থাকছে আজকের পর্বে ।

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

# BD Earning Quiz Game

বিডি আর্নিং কুইজ গেম খেলে টাকা আয়

বিডি আর্নিং ক্যুইজ গেম অর্থ উপার্জনের পাশাপাশি সাধারণ শিক্ষার একটি দারুণ মাধ্যম। বিডি আর্নিং ক্যুইজ গেম এর মাধ্যমে আপনি আপনার যোগ্যতার পরীক্ষা এবং সামান্য পরিমাণ ইনকামের রাস্তা তৈরি করতে পারেন । তাহলে চলুন বিডি আর্নিং গেম সম্বন্ধে জেনে নেয়া যাক।

BD Earning Quiz Game

ক্যুইজ গেমটি খেলুন গেম খেলে টাকা আয় বা অর্থ উপার্জন করুন। নগদ চূড়ান্ত মেমোরিবিলিয়া কুইজ অ্যাপ্লিকেশন যা এখানে গড়ে উঠেছে। এমন সকল ব্যক্তির প্রতি লক্ষ্যযুক্ত যারা জয়ের পুরষ্কার এবং অনলাইন আয়ের সাথে শিখতে এবং খেলতে পছন্দ করে।

আপনি যদি জ্ঞান সন্ধানকারী হন এবং ট্রিভিয়া গেমগুলি আপনার জিনিস হয় তবে বিডি আর্নিং কুইজ গেমটি আপনার জন্য একেবারে উপযুক্ত গেম। উদাহরণস্বরূপ ইংরেজী এবং বাংলা ব্যাকরণ, দেশ, মানুষ, জাতি, সংস্কৃতি, খেলাধুলা ইত্যাদি বিষয়গুলি সহ ৫০০০+ এরও বেশি একাধিক পছন্দের প্রশ্নাবলীর সাথে এটি একটি মজাদার এবং চ্যালেঞ্জিং অ্যাপ্লিকেশন।

সেটিংয়ের মাধ্যমে তার ব্যবহারকারীর কাছে নতুন জ্ঞানের শক্তি বহন করায় তাদের মূল লক্ষ্য। তাদের সঠিক উত্তর এবং উত্তর দেওয়ার সত্যতা জন্য পুরষ্কার দেওয়া। সত্যিকারের জীবনে তারা মুখোমুখি হতে পারে এমন সাধারণ জ্ঞান ভিত্তিক প্রশ্ন , গেমের জন্য এটির খেলোয়াড়দের সুসংগঠিত করার এক প্রবেশ পথ।

কুইজ / গেমের ইন্টারেক্টিভ প্রকৃতি হ’ল যা আপনাকে আরও বেশি করে ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করবে এবং স্পষ্টভাবে আপনার মধ্যে প্রতিযোগিতামূলক দিক উত্থাপন করবে। আপনি যদি ইন্টারনেটের মাধ্যমে রেফারেল করে ইনকাম করতে চান সেভাবেও  ইনকাম করতে পারবেন। যদি আপনি এই অ্যাপটিকে পছন্দ হয় তাড়াতাড়ি ডাউনলোড করুন।

বৈশিষ্ট্য:
শ্রেণিবদ্ধকরণের একটি গুণ থেকে ৫০০০+ প্রশ্ন
• বেশ কয়েকটি গেমিং পছন্দ বিকল্প
বোর্ডের নেতা পরিষ্কার প্রদর্শন
• দৈনিক পাশাপাশি মাসিক ইনকাম গেমস এবং পুরষ্কার
• উচ্চ স্কোর পুরস্কারের টাকা পেতে সাহায্য করা
• প্রিমিয়াম সদস্য কোম্পানির বিক্রয় ভাগ পান
অর্থ প্রদানের পদ্ধতি: ব্যাংক, বিকাশ, রকেট, নগদ, ফ্লেক্সিলোড           

# Big Time Cash – গেম খেলে টাকা আয়

বিগ টাইম একমাত্র অ্যাপ্লিকেশন যেখানে আপনি বিনামূল্যে ভিডিও গেম খেলে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। আমরা ইতিমধ্যে আপনার মতো ভাগ্যবান দশ খেলোয়াড়দের হাজার ডলার দিয়েছি।

আপনাকে যা করতে হবে তা হ’ল আমাদের যে কোনও গেম খেলুন এবং ঘন ঘন নগদ পুরষ্কার অঙ্কনে প্রবেশ করার জন্য কমপক্ষে একটি টিকিট সংগ্রহ করুন। আপনি যত বেশি টিকিট সংগ্রহ করবেন নগদ পুরষ্কার জয়ের সম্ভাবনা তত বেশি।  আপনার নামটি বিজয়ী টিকিটে আছে কিনা তা দেখার জন্য ড্রয়ের সময় আবার পরীক্ষা করুন। পেপাল মানি ট্রান্সফারের মাধ্যমে বিজয়ী পুরস্কার প্রদান করা হয়।

Big Time Cash

বাংলাদেশে পেপাল মানি ট্রান্সফার গ্রহণযোগ্য নয়। কিন্তু জুম অ্যাপস এর মাধ্যমে পেপ্যাল এর টাকা বাংলাদেশের ব্যবহার করা সম্ভব। সে বিষয়ে জানতে চাইলে অবশ্যই আমাদের আর্টিকেলে নিচে কমেন্ট করুন । আমরা পেপালের মাধ্যমে বাংলাদেশে টাকা আনার জন্য সম্পূর্ণ কৌশল আপনাদের সাথে শেয়ার করব।

এটি খুব সহজ, প্রতিটি অঙ্ক আমরা একজন ভাগ্যবান বিজয়ীর সাথে আমাদের বিজ্ঞাপনের আয়ের একটি অংশ ভাগ করে নিই। আমাদের ব্যবহারকারী বেস যত বড় হবে আমরা তত বেশি ডলার দেব। অ্যাপ্লিকেশন ক্রয়ে কোন অর্থের প্রয়োজন নেই এবং জয়ের জন্য কোনও অর্থ প্রদান নেই। আমরা আমাদের মডেলকে ফ্রি-টু-উইন কল করছি এবং আমরা এটি নিয়ে খুব গর্বিত, তাই বিগ টাইম ডাউনলোড করুন এবং বিনামূল্যে নগদ জয়ের সুযোগের জন্য এটি পরীক্ষা করে দেখুন । আপনি অন্য কিছু খেলবেন কেন? যদি এখান থেকেই গেম খেলে টাকা আয় বা অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

তাহলে তুমি কিসের জন্য অপেক্ষা করছ? আরও দুর্দান্ত গেমস আনলক করতে আজই বিগ টাইম ডাউনলোড করুন এবং বিনামূল্যে আরও বেশি নগদ পুরষ্কার পান! বিগ টাইম ব্যবহার করে, যে কেউ বাড়িতে, বাস স্টেশন, মেট্রোতে বা পাতাল রেল ইত্যাদিতে বিনামূল্যে গেম খেলে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন!

কখনও ভেবে দেখেছেন কীভাবে ভিডিও গেমস খেলে অর্থ উপার্জন করবেন? আচ্ছা এটি হ’ল, গেম খেলে আপনার অর্থ উপার্জনের উপায়।                        

#GAMEE Prizes – WIN REAL CASH গেম খেলে টাকা আয়

প্রতি সপ্তাহে শত শত ডলারের জন্য ১০০% বিনামূল্যে গেম খেলে পুরষ্কার জিতে নিন । গেমটি একটি ফ্রি মোবাইল গেমিং অ্যাপ্লিকেশন যা ব্যবহারকারীদের ফ্রি ভিডিও গেম খেলে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন । অ্যাপ্লিকেশন ক্রয়ে কোন অর্থের প্রয়োজন নেই এবং জয়ের জন্য কোনও অর্থ প্রদান নেই।

একটি অ্যাপ্লিকেশনে ৭০ পর্যায়ে বিভিন্ন গেম খেলুন। ফরচুনের হুইলটি ঘুরান, প্রতিদিন তাত্ক্ষণিকভাবে উপার্জনের জন্য প্রতিদিনের টিকিট লিডারবোর্ডে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করুন বা প্রতি ৪ ঘন্টা $ ১০০ জিতে লাকি গেমসে অংশ নিন, সম্পূর্ণ বিনামূল্যে !

এটা কিভাবে সম্ভব? গেমি বিজ্ঞাপন থেকে আমাদের উপার্জনটি কেবল শেয়ার করে এবং এটিকে খেলোয়াড়দের জন্য বিনামূল্যে বাস্তব পুরষ্কার এবং পুরষ্কারে রূপান্তরিত করে। আমরা যত বেশি উপার্জন করব, তার পুরষ্কারগুলি আরও বেশি এবং আমাদের প্রতিদিন আরও বেশি বিজয়ী থাকতে পারে! গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য এই গেমটিই যথেষ্ট ।

game prizes - play free games win real cash

শীর্ষ আরকেড গেমস, ধাঁধা, দ্রুত এবং মজাদার উপভোগ করুন। ভিন্ন গেমের সাথে আমরা প্রতি মাসে পুরষ্কার জিততে আরও নতুন উপায় নিয়ে নতুনকে নিয়ে আসি! আমি প্রতি সপ্তাহে কিভাবে লাকি গেমসে অংশ নিয়ে পুরুস্কার জিততে পারি?
বিনামূল্যে টিকিট সংগ্রহ করুন এবং আপনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রতি রবিবারের ড্রয়ে প্রতিমাসে + $ ৫ প্রদানের মাধ্যমে অংশ নেবেন।

গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য সঠিক নির্দেশনা নিয়ে কাজ করলে আপনি ইঙ্কাম করতে পারবেন। গেম খেলে টাকা আয় বা গেম খেলে টাকা ইনকাম কোণটাই চিরস্তায়ি হবে বলে আমি মনে করি না।

 * প্রতি সপ্তাহে শত জন বিজয়ীর সাথে রিগ্রেট বিগের অর্থ পুরষ্কার জিতুন।
 * প্রতি ২৪ ঘন্টায় প্রতিদিনের টিকিট লিডারবোর্ডে প্রতিযোগিতা করুন।
 * প্রতি ৪ ঘন্টা তাত্ক্ষণিক পুরস্কার জিততে লাকি গেমসে যোগদান করুন।

আমি কীভাবে টিকিট পাব? বিনামূল্যে আমাদের ফ্রি গেমস এবং সম্পূর্ণ গেম মিশন খেলুন । ফরচুনের চাকা স্পিন করুন এবং টন টিকিট এবং বিনামূল্যে পুরষ্কার জিতুন। আপনি প্রচুর টিকিট এবং বিনামূল্যে রিয়েল ডলার পেতে বন্ধুদের আমন্ত্রণ জানান।

স্তর বাড়ান এবং একটি টিকিট গুণক অর্জন করুন এবং প্রতি গেমপ্লেতে আরও ৪x টিকিট জিতুন!

আরও টিকিট = বিনামূল্যে প্রকৃত নগদ পুরস্কার জয়ের উচ্চতর সুযোগ এবং গেম খেলে টাকা আয়।

আমাদের ফ্রি গেমস খেলুন এবং একক ডলার ব্যয় না করে ভাগ্যবান ড্রয়ায় বাস্তব জিতুন। কোনও অ্যাপ্লিকেশন ক্রয় এবং জেতার জন্য কোনও অর্থ প্রদান নেই। তৈরি করা সেরা গেমগুলির সাথে মজা করার সময় পুরষ্কার, পুরষ্কার এবং উপার্জনের সুযোগগুলি আশা করুন।

প্রতিদিন গেমটিতে আসুন আপনার বন্ধুবান্ধবগুলিকে আপনার পুরষ্কার তৈরির দলে আনুন এবং প্রতিটি আমন্ত্রনের সাথে একসাথে বিনামূল্যে বাস্তব পুরষ্কার জিতুন এবং গেম খেলে টাকা আয় করুন। আসল জয়ের জন্য ফ্রি গেমস খেলার আর ভাল উপায় আর নেই।

 দৈনিক পুরষ্কার: আপনাকে প্রচুর টিকিট জয়ের আরও বেশি সুযোগ দেওয়ার জন্য প্রতিদিন গেম খেলে টাকা আয় করার নতুন মিশন এবং বড় পুরষ্কার পেতে পারেন।

গেম জুয়েলের অনুমোদন বা প্রচার করে না। সুইপস্টেক বা প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে অবশ্যই কোনও ক্রয় বা অর্থ প্রদানের প্রয়োজন নেই.

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম

আপনারা তো অবসর সময়ে অনেকে ঘরে বসে লুডু গেম খেলে সময় কাটিয়ে দেন। কিন্তু আপনারা কি জানেন লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম করা যায়। আপনারা ঘরে বসে সহজে লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তাই যারা অবসর সময় গেম খেলতে ভালবাসেন এই পোস্টটি তাদের জন্য।

লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম

আপনারা কিভাবে গেম খেলে টাকা আয়, লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম করতে পারবেন তা আমি আপনাদের কাছে শেয়ার করব। অনেকেই আছে অনলাইন থেকে অনেক ভাবে গেম খেলে টাকা আয় করেন বা করতে চাচ্ছেন কিন্তু লুডু খেলে ও যে টাকা ইনকাম করা যায় তা কয়জনই বা জানেন। লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনাদেরকে একটি অ্যাপস ইনস্টল করতে হবে । অ্যাপসটি আপনারা প্লে স্টোরে সার্চ করলে পাবেন না। অ্যাপস টি ডাউনলোড করতে হলে এই আপনাকে একটি ওয়েবসাইটের সাহয্য নিতে হবে। লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনাদের সুবিধার্থে অ্যাপসটির ডাউনলোড লিঙ্ক নিচে দেওয়া আছে চাইলে ডাউনলোড করতে পারেন। নিচে ডাউনলোড নামে একটি অপশন দেখতে পারবেন সেখানে ক্লিক করে অ্যাপসটি ডাউনলোড করবেন।

এটি মুলত বাংলাদেশের ১ম লুডু টুর্নামেন্ট অ্যাপস প্লেয়ারজোন। এই এপের মাধ্যমে আপনি নিজেই অনলাইনে লুডু টুর্নামেন্টে জয়েন হয়ে বিনোদন এর পাশাপাশি টাকা ইনকাম করতে পারেন। তাদের পর্যাপ্ত এক্সপার্ট অপারেটর থাকায় খুব দ্রুত অ্যাপস সকল ট্রাঞ্জেকশন সম্পন্ন করার পাশাপাশি লাইভ সাপোর্ট সিস্টেম দিয়ে থাকে। তাদের অ্যাপস এর সকল লেনদেন এর হিস্টরি যেমনঃ দৈনিক ডিপোজিট, উইথড্র এবং কে কয়টি ম্যাচ খেলছে এবং কে কোন ম্যাচে উইন হইছে এসকল হিস্টোরি লাইভে সাথে সাথ পাব্লিক হয়ে যায়। 

লুডু গেম খেলে টাকা ইনকাম

সতর্কতাঃ আমরা যে গেমগুলো বিষয় আলোচনা করেছি এই গেমগুলোর থেকে টাকা ইনকাম করা চিরস্থায়ী নয়। তাই কেউ যদি এটা ভাবেন যে আমরা এখান থেকে সারা জীবন ইনকাম করবো তা কিন্তু নাও হতে পারে। তাই চিরস্থায়ী ইনকামের কিছু টিপস-এন্ড-ট্রিকস আমরা আপনাদেরকে দিব। যা দিয়ে আপনি সারাজীবন গেম খেলে টাকা আয় বা ইনকাম করতে পারবেন, অনলাইন এর উপর নির্ভরশীল হতে পারবেন ।আমাদের আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। নিচে আপনার মতামত আশা করছি !