১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে সাকিব-মুস্তাফিজ

অনেক জল্পনা-কল্পনার পর দেশে ফিরলেন সাকিব-মুস্তাফিজ, থাকবেন ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে । ভারত থেকে নিরাপদে দেশে ফিরেছেন আইপিএল খেলতে যাওয়া বাংলাদেশের দুই তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমান। বৃহস্পতিবার বিশেষ বিমানে করে ঢাকায় পা রেখেছেন দুজন তারকা।

ভারতে করোনার প্রকোপ ভয়াবহ আকার ধারণ করায় অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। টুর্নামেন্ট বন্ধ হওয়ার পর বিদেশি ক্রিকেটারদের ফেরার ব্যবস্থা করছে আইপিএল কর্তৃপক্ষ। এবারের আসরে অংশ নিয়েছেন বাংলাদেশের দুই তারকা সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমান। তাই তাঁরাও আজ ভারত থেকে ফিরেছেন।

দেশে ফিরে দুজনকেই থাকতে হচ্ছে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে। এর জন্য ঢাকায় পা রেখে দুজনেই হোটেলে গিয়েছেন। দুজন আলাদা হোটেলে উঠেছেন। এর মধ্যে স্ত্রীকে নিয়ে হোটেল সোনারগাঁওতে কোয়ারেন্টিনে থাকবেন মুস্তাফিজ। আর সাকিব ফোর পয়েন্টস বাই শেরাটনে কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন।

ক্রিকেটকে বিদায় জানাচ্ছেন ক্রিকেটার আব্দুর রাজ্জাক ও শাহরিয়ার নাফিস

সব ধরনের ক্রিকেট থেকে অবসরে যাচ্ছেন এক সময়ের জাতীয় দলের দুই ক্রিকেটার আব্দুর রাজ্জাক ও শাহরিয়ার নাফিস। শনিবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের মিডিয়া সেন্টারে আনুষ্ঠানিকভাবে তারা অবসরের ঘোষণা দেবেন। এ সময় সেখানে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও উপস্থিত থাকবেন।

ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এমন তথ্য জানিয়েছে। কোয়াবের সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত সেখানে বলেছেন, ‘আগামীকাল কোয়াবের মাধ্যমে আব্দুর রাজ্জাক ও শাহরিয়ার নাফিস অবসরের ঘোষণা দেবেন। পিচ ফাউন্ডেশনের অনুষ্ঠানের পর একই মঞ্চে তাদের জন্য আমরা এই আয়োজন রেখেছি।’

মাঠের ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেও তারা কেউই ক্রিকেট ছেড়ে যাচ্ছেন না। আব্দুর রাজ্জাক তৃতীয় সদস্য হিসেবে মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও হাবিবুল বাশার সুমনের সঙ্গে জাতীয় নির্বাচক কমিটিতে যুক্ত আছেন। অন্যদিকে নাফিস ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের ডেপুটি ম্যানেজারের দায়িত্ব পেয়েছেন।

অবসর প্রসঙ্গে জাতীয় দলের ক্রিকেটার শাহরিয়ার নাফিস বলেছেন, ‘সিদ্ধান্ত গতকাল নিয়েছি। বিসিবির সঙ্গে নিয়মিত কথা চলছিল। একটা ভালো উপলক্ষের অপেক্ষায় ছিলাম। শনিবার মিরপুরে একটি অনুষ্ঠান আছে। সেখানে বোর্ড সভাপতি থাকবেন, পরিচালকরা থাকবেন, গণমাধ্যমকর্মীরাও থাকবেন। এর থেকে ভালো মঞ্চ তো আর হতে পারে না। এজন্য কালই অবসরের ঘোষণা দেবো।’

আব্দুর রাজ্জাক তার প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, ‘সিদ্ধান্ত তো নেওয়াই ছিল। আগামীকাল ঘোষণা দেবো। বোর্ডের সঙ্গে সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে। এখন নতুন যাত্রার অপেক্ষায় আছি।’

বাংলাদেশের একমাত্র বোলার হিসেবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৬০০ উইকেট শিকার করেছেন আব্দুর রাজ্জাক। তার উইকেট সংখ্যা এখন ৬৩৪। ৫ উইকেট নিয়েছেন ৪১ বার, ১০ উইকেট ১১ বার। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিয়েছেন ৪১২ উইকেট। সেরা বোলিং ইনিংস ১৭ রানের বিনিময়ে ৭ উইকেট।

এছাড়া আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও তার সাফল্য অনেক। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের প্রথম দুইশ উইকেট শিকারি বোলার তিনিই। এই ফরম্যাটে ১৫৩ ম্যাচ খেলে তিনি নিয়েছেন ২০৭ উইকেট। ১৩ টেস্টে তার শিকার ২৮ উইকেট। আর ৩৪ টি-টোয়েন্টি খেলে উইকেট নিয়েছেন ৪৪ উইকেট।

এদিকে বাঁহাতি ব্যাটসম্যান নাফিস জাতীয় দলের হয়ে ২৪ টেস্ট, ৭৫ ওয়ানডে এবং ১ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। সব মিলিয়ে তিন ফরম্যাটে তার রান ৩ হাজার ৪৬৮।

 

এক নজরে ২০২১ সালের বাংলাদেশ ক্রিকেট ম্যাচ

২০২০ সাল সময়টা খুব একটা ভালো যায়নি বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের জন্য। ২০২০ সালে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এর কারণে খুব বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ পায়নি বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। তবে নতুন বছরে খুবই ব্যস্ত সময় পার করবে টাইগাররা।

 

আইসিসির তথ্য অনুযায়ী ২০২১ সালে অন্তত ১৫টি ওয়ানডে ও ৩১টি টি টোয়েন্টি খেলতে পারে বাংলাদেশ। এর বাইরে আরও অনেক দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজন করতে পারবে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল।

 

এক নজরে ২০২১ সালের বাংলাদেশ ক্রিকেট ম্যাচ ঃ-

জানুয়ারি থেকে ফেব্রুয়ারি ঃ- ২০২১ সালের শুরুতেই উইন্ডিজের বিপক্ষে হোম সিরিজে খেলবে বাংলাদেশ। সিরিজে থাকছে ওয়ানডে – টেস্ট মিলে মোট ৫ টি খেলা।

ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ ঃ-  স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড বিপক্ষে খেলতে যাবে বাংলাদেশ ।তিনটি ওয়ানডে এবং তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলবে টাইগাররা।

এপ্রিল ঃ- নানা নাটকীয়তার পর এবার চালু হতে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা সফর। এপ্রিলে তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজ খেলতে শ্রীলঙ্কা সফরে যাবেন মমিনুল হকের দল । শ্রীলংকার সাথে খেলবে আরও তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ।

মে মাসে এশিয়া কাপ।

জিম্বাবুয়ে, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়ানডে ,টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ এবং নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে ভারতের মাটিতে । বছর শেষ হবে পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে ।

টোকিও অলিম্পিক স্থগিত করার কারণে দায়ী করোনা ভাইরাস

এই বছর টোকিও অলিম্পিক স্থগিত করার কারণে করোনভাইরাসটি প্রায় ২০০ বিলিয়ন ইয়েন ($ ১.৯ বিলিয়ন) ব্যয় করেছে, আয়োজকরা অনুমান করেছেন, রোববার ইয়মিউরি পত্রিকা এই ঘটনার সাথে জড়িত লোকদের উদ্ধৃত করে জানিয়েছে।

আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি এবং জাপান সরকার করণাভাইরাসটি বিশ্বজুড়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় মার্চ মাসে এক বছর গেমস বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছিল। স্থগিতের আগে গেমসের ব্যয় হয়েছে ১.৩৫ ট্রিলিয়ন ইয়েন (১৩ বিলিয়ন ডলার), সংবাদপত্রটি জানিয়েছে।

সংবাদপত্রটি জানিয়েছে, টোকিও মহানগর সরকার ও কেন্দ্রীয় সরকারের মধ্যে আলোচনার পরে ডিসেম্বরে বিলম্বের বোঝা ভাঙ্গার বিষয়ে আয়োজক কমিটি সিদ্ধান্ত নেবে।

এই প্রতিবেদনটির বিষয়ে জানতে চাইলে সংগঠকদের এক মুখপাত্র রয়টার্সকে কেবল পাঠ্য বার্তায় বলেছিলেন যে কমিটি বিলম্বের সাথে জড়িত অতিরিক্ত ব্যয় পরীক্ষা করছে।

স্থগিতের ব্যয়গুলির মধ্যে কর্মীদের প্রদানের পাশাপাশি টিকিট ফেরত দেওয়ার জন্য নতুন সিস্টেম প্রবর্তনের অন্তর্ভুক্ত রয়েছে । তবে সংবাদপত্রটি বলেছে, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে দেওয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা অন্তর্ভুক্ত নয়।

আয়োজকরা প্রাথমিকভাবে অনুমান করেছিলেন যে বিলম্বের জন্য প্রায় ৩০০ বিলিয়ন ইয়েন ব্যয় হবে তবে তারা কিছু ইভেন্টকে সহজ করে এই সংখ্যাটি হ্রাস করতে সক্ষম হয়েছে, রিপোর্টে বলা হয়েছে।

কালীপুজোর উদ্বোধন করলেন হাজী সাহেব

দীর্ঘ ১ বছর ছিলেন জাতীয় দলের বাহিরে। তাকে নিয়ে ছিল না কোন বিতর্ক বা মতোবেদ। কিন্তু দলে ফিরেই জন্ম দিলেন নানা বিতর্কের । দেশে ফিরেই করোনার সময় মাস্ক বিহীন অবস্থাই সংবাদ সম্মেলনে যোগ দেন সাকিব। এখন তার কিছু দিন যেতে না যেতেই কলকাতায় এক কালী পূজার উদ্ভদন করে নতুন বিতর্কের জন্ম দিলেন। এতে দেশের মুসলিম সমাজ তাকে ধিক্কার জানাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (১২  নভেম্বর) সন্ধ্যা ছ’টায় কাঁকুড়গাছি সম্মিলিত সর্বজনীন পরেশ পালের কালীপুজোর উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকছেন বিধায়ক পরেশ পাল ও বাংলাদেশের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। তিনি সেখানে সেচ্ছায় উপস্তিত হয়ে উদ্বোধনী ভাষণ দেন।

বাংলাদেশের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ও তার সহধর্মিণী শিশির গত কয়েক বছর আগে মক্কায় হজ্জ করে আসেন। এমনকি তিনি কয়েকবার ওমরাও করে আসেন। তাই তাকে ইসলামের রীতিতে হাজী সাহেব বলা যায়। বাংলাদেশের আলেম সমাজ প্রশ্ন তুলেছে, আলহাজ্জ সাকিব আল হাসান পৃথিবীর সব মুসলিমদের অন্তরে কষ্ট দিয়েছেন । তিনি যেন খুব দ্রুত তার ভুল বুঝে সৃষ্টিকর্তার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

আরও বলা হয় এটা রাজনৈতিক ইস্যু হলে এতো বিতর্কের সৃষ্টি হত না। এটা একজন হাজী সাহেব হয়ে ধর্মকে অবমাননা করা হয়।