প্রেমের কবিতা: ১০০+ ভালোবাসার কবিতা ২০২১

বাছাইকৃত সেরা প্রেমের কবিতা

যখন কোন মানুষ প্রেমে পড়ে বা মনে প্রেম ভালোবাসার আবেগের উপস্থিতি ঘটে তখন সেই ব্যক্তি সহজেই প্রেমের কবিতা লিখতে পারে। প্রেম পুরোপুরি তার মানসিক বিষয়। কথায় আছে মানুষ যখন প্রেমে পড়ে তখন সে কবি হয়ে উঠে। আর সেই ক্ষণে একজন ব্যক্তি খুব সহজে ভালবাসার কবিতা এবং রোমান্টিক প্রেমের কবিতা লিখতে পারে। তারা সকলেই তাদের প্রেমের কবিতার মাধ্যমে তার মনের প্রেম ভালোবাসার স্লোগান গাইতে পারেন।

তবে যে ব্যক্তি কখনো প্রেমে পড়েনি সে কখনো ভালোবাসার কবিতা লিখতে পারবে না, এই কথাটি সম্পূর্ণ ভুল। প্রেমের কবিতা লিখার জন্য বাস্তবে প্রেমে পড়তে হয় না। যুগে যুগে যত জ্ঞানি-গুনি, কবি-সাহিত্যিক এর আবির্ভাব হয়েছে, তারা সকলেই প্রেমের কবিতা লিখার জন্য মানুষের প্রেমে পড়ে নি। প্রেমের কবিতা লিখার জন্য দরকার প্রেমের মানসিকতা।

প্রেম হলো এমন একটি সুন্দর অনুভূতি যা সহজে কথায় প্রকাশ করা যায় না। তাই প্রেমের অনুভূতিকে প্রকাশ করার জন্য অনেকেই রোমান্টিক প্রেমের কবিতার সন্ধান করে থাকে। এবং আপনিও যদি তাদের মধ্যে একজন হন তাহলে আপনি এখানে বাছাই করা রোমান্টিক প্রেমের কবিতা ও ভালবাসার কবিতা পেয়ে যাবেন। কারণ এই পোস্টে আপনি রোমান্টিক প্রেমের কবিতা থেকে শুরু করে মিষ্টি প্রেমের ছন্দ, সকল ধরনের সুন্দর প্রেমের কবিতা পেয়ে যাবেন।

যারা অসম্ভব সুন্দর প্রেমের কবিতা খুঁজছেন আপনার প্রিয়জনকে পাঠাবেন বলে, তাদের জন্য আমরা কিছু সুন্দর ছবি তৈরি করে রেখেছি আপনার সুন্দর প্রেমের কবিতা বা ভালোবাসার কবিতা লিখার জন্য।

প্রেমের-কবিতা
প্রেমের-কবিতা

আমরা সম্প্রতি সময়ের বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় রোমান্টিক প্রেমের কবিতা সংগ্রহ করেছি। এই ভালোবাসার কবিতা গুলো বা প্রেমের কবিতাগুলো নতুন প্রজন্মের কিছু কবিরা লিখেছেন। আমার বিশ্বাস যারা অসম্ভব সুন্দর প্রেমের কবিতা খুঁজছেন কিংবা ভালোবাসার কবিতা পড়তে পছন্দ করেন, তাদের কাছে এই কবিতাগুলো অবশ্যই পছন্দ হবে।

রোমান্টিক প্রেমের কবিতা ২০২১

সংগৃহীত
পথের ধুলোয় পায়ের ছাপটি আঁকা
ছাপের ভেতর মন কেমনের সুর।
চলে গিয়ে চোখের আড়াল হলেও
মনের আড়াল কোথায়, কত দূর?
সংগৃহীত
ওই দেখা যায় প্রেম গাছ, ওই আমাদের আশা,
ওই খানেতে বাস করে শুধুই ভালোবাসা.
ভালোবাসা তুই চাস কি ?
মনের মতো মন পাস্ কি ?
যদি একটা পাস্, আমায় খবর দিয়ে যাস !
সংগৃহীত
তোমার জন্য কাপছে কেন মন
কাঁদছে কেন শূণ্য চোখের কোণ?
তোমার জন্য বুকের গহিন জুড়ে
আমার সময় নিঃশব্দ, নির্জণ।
সংগৃহীত
হাজার তারা চাইনা আমি, একটা চাঁদ চাই,
হাজার ফুল চাইনা আমি একটা গোলাপ চাই.
হাজার জনম চাইনা আমি একটা জনম চাই,
সেই জনমে যেন শুধু তোমায় আমি পাই !
সংগৃহীত
অনুরোধে নয় অনুরাগে তোমাকে চাই,
অভিলাসে নয় অনুভবে তোমাকে চাই,
বাস্তবে না পেলেও কল্পনাতে তোমাকে চাই ।
সংগৃহীত
অপেক্ষায় আছি অপেক্ষায় থাকবো,
যতদিন বেঁছে থাকি তোমায় মনে রাখবো,
যত কষ্ট হোক সব মেনে নেবো,
তবুও চিরদিন তোমাকেই ভালোবাসবো ।
সংগৃহীত
অভিমান রাগ একমাত্র তার উপরেই করা যায়,
যাকে সবচেয়ে বেশী ভালোবাসা যায় ।
সংগৃহীত
মেঘের হাতে একটি চিঠি পাঠিয়ে দিলাম আজ
বন্ধু আছি অনেক দূরে হাতে অনেক কাজ
বৃষ্টি তুমি একটি বার জানিয়ে দিও তাকে-
বন্ধু তোমার পাসেই আছি, হাজার কাজের ফাঁকে।
প্রেমের কবিতা
প্রেমের কবিতা
প্রেমের কবিতা
প্রেমের কবিতা
সংগৃহীত
চাঁদকে বলে একটু আলো দিতে পারি তোমায়
সেই আলোতে দেখে নিও পরান ভরে আমায়
বাতাস হয়ে উড়িয়ে নেবো মেঘেরই উপরে
সন্ধ্যা হলে পৌঁছে দেবো তোমার আপন ঘরে ।
সংগৃহীত
জানি না ভালোবাসার আলাদা আলাদা নিয়ম আছে কিনা
তবে আমি কোন নিয়মে তোমাকে ভালবাসেছি তাও জানিনা
শুধু এইতুকু জানি আমি তোমাকে অনেক অনেক ভালোবাসি ।
সংগৃহীত
সকাল বিকেল বৃষ্টি পড়ে
        রাত দুপুরে মন পুকুরে
        নুপুর পরে শব্দ করে
         অচিন পুরে হৃদয় জুড়ে
সংগৃহীত
আমার শুধু ইচ্ছে করে সঙ্গে বসে থাকি
        হারিয়ে যাওয়া সময়টাকে মুঠোয় ভরে রাখি
         হাওয়ার সাথে সময় কাবার  তোমার যাওয়ার সময় হল
         মনে মানে না ছাড়তে তোমায় আবার কবে আসবে বলো
সংগৃহীত
তুমি আমার রঙিন স্বপ্ন, শিল্পীর রঙে ছবি,
তুমি আমার চাঁদের আলো, সকাল বেলার রবি,
তুমি আমার নদীর মাঝে একটি মাত্র কুল,
তুমি আমার ভালোবাসার শিউলি বকুল ফুল !
সংগৃহীত
একটা তোমার মতো চাঁদের জন্য মেয়ে
আমি জোছনা সকল হেলায় ভুলে থাকি।
একটা তোমার মতো মনের জন্য মেয়ে
আমি হৃদয়টাকে যত্নে তুলে রাখি।
সংগৃহীত
শোনো
জল ছলছল কজল চোখের কণ্যা সর্বনাশী
আমি তোমায় ভালোবাসি।
সংগৃহীত
যেতে হলে, এখুনি যাও
পরে গেলে মায়া বেড়ে যাবে,
থেকে গেলে, এখুনি থাকো
বেলা শেষে ছাড়া বেড়ে যাবে।
সংগৃহীত
তুই গেঁথে যাস আরো, যতই ছাড়াতে চাই
তুই ক্ষতই বাড়াস, যতই সারাতে চাই
তুই অর্ধেক ব্যথা, অর্ধেক ব্যথাহীন
তুই বুকের ভেতর একটা আস্ত সেফটিপিন।
সংগৃহীত
দিন যায় দিন আসে, সময়ের স্রোতে ভেসে,
কেউ কাঁদে কেউ হাসে, তাতে কি যায় আসে,
খুঁজে দেখো আসে পাশে,
কেউ তোমায় তার জীবনের চেয়ে বেশি ভালোবাসে !
সংগৃহীত
দুঃখ আছে মনে মনে,
বলবো আমি কার সনে,
শোনার মতো মানুষ নাই,
তাই নিজের কষ্ট নিজেই পাই,
যেদিন পাবো তার দেখা,
বলবো আমার মনের সব কথা !
সংগৃহীত
তোমার জন্য মেঘ গুলো ভেসে যাচ্ছে আকাশে,
তোমার জন্য স্বপ্নঘুড়ি উড়ছে ভেসে বাতাসে,
তোমার জন্য আছে আমার বুক ভরা ভালোবাসা,
এই কথা জানে শুধু আমার বিধাতা !
সংগৃহীত
অন্য কারো সুখের কারন হয়ে
আপনি যে সুখের অনুভুতি পান,
সেটিকেই সবচেয়ে বড় সুখ বলা হয় ।
প্রেমের কবিতা
প্রেমের কবিতা
প্রেমের কবিতা
প্রেমের কবিতা
সংগৃহীত
আজ ছন্দ মহলে মিলছে দুটি মন,
মনে মনে বলবে ওরা কথা যে সারাক্ষন,
কথার মাঝে থাকবে গভীর ভালোবাসা,
ভালোবাসার মাঝে থাকবে দুটি মনের বেকুলতা !
সংগৃহীত
মনের মাঝে শুধুই তুমি,
বাঁধানো সুখের বাগান,
সাজিয়ে গুছিয়ে রাখবো যে তা
রেখে বাজি নিজের প্রাণ।
সংগৃহীত
ফুলের মতো ফুটে আছে আকাশের ওই তারা,
একা আমি ভালো লাগে না বন্ধু তোমায় ছাড়া,
তুমি ছাড়া এই মনটা কিছু বুঝে না,
পাখি হয়ে আমার কাছে উড়ে এসোনা !
সংগৃহীত
মন নেই ভালো, জানিনা কি হলো.
পাশে নেই তুমি, কি করি আমি !
পাখি যদি হতাম আমি এই জীবনে,
তোমায় নিয়ে উড়ে যেতাম অচিন ভুবনে 
সংগৃহীত
কতটা হাত বাড়িয়ে দিলে তোমার মন ধরা যায়,
কতটা পথ পাড়ি দিলে তোমার মন পাওয়া যায় .
পাবো কি পাবোনা জানিনা , তোমাকেতো বুঝিনা.
তবু তোমার প্রেমে আমি পড়েছি,
বেঁচে থেকেও যেন আমি মরেছি.
সংগৃহীত
ভালোবাসার অপর নাম,
তোমার নামেই লিখে নিলাম,
মুক্ত আকাশের চিলেকোঠায়
স্বর্ণাক্ষরে গেঁথে দিলাম।
সংগৃহীত
হাসবে তুমি, দেখবো আমি
মুচকি মুচকি হেসে,
সুখের পথের পথিক হয়ে,
যাবো ভালোবেসে।
সংগৃহীত
থেকো পাশে হাতটি ধরে,
মন পাঁজরে রেখো।
সারা জীবন আপন ভেবে,
আমার হয়ে থেকো।
সংগৃহীত
যেতে যেতে পথে হবে প্রেম, শুধু দুটি মনে,
অনুভবে কথা হবে ভালোবাসারই এই মিলনে.
মেঘেরই পালকিতে উড়ে উড়ে , পাখিরা যায় বহু দূরে.
আকাশটা থাকে পিছনে, স্বপ্নের নীল ভুবনে !
হারাবো আজ শুধু ভালোবেসে দুজনে !
সংগৃহীত
যাবে কি পুকুর পাড়ে রাতের বেলায়,
দুজন মিলে জোস্না ছুঁবো তারার মেলায়,
তোমার কোলে মাথা রেখে দেখবো ওই চাঁদ,
ভালোবেসে কাটিয়ে দেব সারা নিশি রাত !
সংগৃহীত
নয়ন তোমারে পায় না দেখিতে
রয়েছ নয়নে নয়নে,
হৃদয় তোমারে পায় না জানিতে
হৃদয়ে রয়েছ গোপনে।
সংগৃহীত
জানি শুধু তুমি আছ তাই আছি
তুমি প্রাণময় তাই আমি বাঁচি,
যতো পাই তোমায় আরো ততো যাচি
যতো জানি ততো জানি নে।
সংগৃহীত
মেঘে মেঘে বেলা বাড়বে, ধনে পুত্রে লক্ষ্মী লোকসান
লোকাসান পুষিয়ে তুমি রাঁধবে মায়া প্রপন্ঞ্চ ব্যন্জ্ঞন
পাগলী, তোমার সঙ্গে দশকর্ম জীবন কাটাব
পাগলী, তোমার সঙ্গে দিবানিদ্রা কাটাব জীবন।
সংগৃহীত
আমি আর পারবো না লিখতে তাহলে
অনবদ্য একটি চরণ, একটিও ইমেজ হবে না রচিত,
তুমি যদি আমাকে না ভালোবাসো তবে
কবিতার পান্ডুলিপি জুড়ে দেখা দেবে ঘুরে ঘুরে অনাবৃষ্টি, খরা।

অসম্ভব সুন্দর প্রেমের কবিতা

ভালোবাসার কবিতা পড়তে ও শুনতে আমরা সবাই পছন্দ করি। বিশেষকরে প্রেমের কবিতার প্রতি আমাদের সবার আগ্রহ একটু বেশি থাকে। আজ আমরা অসম্ভব সুন্দর কিছু প্রেমের কবিতা আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম। প্রেম ভালোবাসার প্রতি যাদের দূর্বলতা আছে, তাদের অবশ্যই এই রোমান্টিক প্রেমের কবিতা গুলো পছন্দ হবে।

সত্যিকারের ভালবাসার কথা বললে বেশ কয়েকটি বাক্যাংশ যথেষ্ট। আপনার সত্য ভালবাসা, আমরা বলতে চাই। আপনার চকচকে চোখ সব বলবে – তবে শব্দগুলি কেবল প্রকাশে সহায়তা করে! এই খুব সংক্ষিপ্ত রোমান্টিক প্রেমের কবিতাগুলি আমাদের কাছে সেরাটি রয়েছে এবং আপনি নিশ্চিত হতে পারেন যে আপনার প্রেমিকা যদি সেগুলির মধ্যে একটি পান তবে তা প্রশংসিত বোধ করবেন!

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

ভালোবাসা নিয়ে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর লিখেছিলেন “ভালোবেসে সখি নিভৃত যতনে আমার নামটি লিখ তোমার মনেরও মন্দিরে”। বর্তমান যুগ ইন্টারনেট ও টেকনোলজির যুগ হওয়ার কারনে আমরা রোমান্টিক প্রেমের কবিতা এবং ভালোবাসার কবিতার মাধ্যমে নিজের প্রিয়জনকে নিজের ভালোবাসার কথা প্রকাশ করি।

বিখ্যাত প্রেমের কবিতা ২০২১
বিখ্যাত প্রেমের কবিতা ২০২১
মিষ্টি প্রেমের কবিতা
প্রখর রোদে ঘামছি আমি
ভাবছি এ যে বৃষ্টি,
মন্দের মাঝেও ভালো থাকি
পেলে তোমার দৃষ্টি।
তোমায় ছাড়া শূন্য ভূবন
মহাকাশের মতো,
নেই পাশেও তবু তোমায়
ভাবছি অবিরত।
মিচুয়াল প্রেমের কবিতা
আমায় তুমি ভালোবাসো
আমিও কি কম ?
সমান্তরাল ভালোবাসা
চলছে হরদম।
ছাড় দিইনা কেউ কাউকেই
পান থেকে চুন খসলেই,
ভালোবাসার বারুদ জ্বলে
হৃদয় একটু ঘষলেই।
নষ্ট প্রেমের কবিতা
বন্য আমি তোমার জন্য
নেই জীবনের মানে,
ধ্বংস হলো জীবন আমার
তোমার প্রেমের টানে।
বোতল আমার সঙ্গী সাথী
ধোঁয়ায় জীবন বাঁধা,
তবুও ভাবি কৃষ্ণ আমি
তুমিই আমার রাধা।
মিনি প্রেমের কবিতা
দূর পাল্লার বাসে তুমি
ছিলে সহযাত্রী,
মিষ্টি মিষ্টি হরেক কথায়
কাটলো দিবা রাত্রি।
নামতে গিয়ে নাম্বার দিলে
তোমার সেল ফোনের,
ডায়াল করে টাশকি খেলাম
নাম্বার অন্য জনের।
বিবাহত্তোর প্রেমের কবিতা
আমি যদি ডাইনে চলি
তুমি চলো বামে,
শীতে যখন কাঁপছি আমি
তুমি ভেজো ঘামে।
তোমার সঙ্গে এখন আমার
কিছুই মিলে না,
কিন্তু তোমায় ছাড়া আমি
চলতে পারিনা।
প্রেমের কবিতা
প্রেমের কবিতা
প্রেমের সেকাল একাল
তোমার ঠোট উপচে ঝরে পড়ছে চাপা খুশির লাবণ্য  
আমার আঙ্গুলে অলৌকিক স্বপ্ন তুলি
              ড্রিমলাইটের রাত
উন্মুক্ত রঙ-ক্যানভাসে আলতো আলতো করে আঁকছি প্রেমের পেন্ডুলাম
              লোমকূপে লবণিয়া জলের ফটক
ঘুমপোশাকে পাশবালিশে রোজ তোমাকে দেখতে চাইতাম একটাসময়
এখন দেখি জাহান্নম।
‘আমাদের আত্মিকপ্রেম যেনো জাহান্নামের লাকড়ি’
এক অষ্টাদশীর প্রেম
আমার স্নিগ্ধ সকাল, সাবলিল বিকেল,আমার জ্যোৎস্না রাত,আমার সব ।
যন্ত্রনাদায়ক এই ঠুনকো বন্ধন আমাকে পুড়িয়ে মারছে বারংবার।
এই পোড়া ঘা থেকে মুক্তি পেতে বৃষ্টি জ্বলে আস্বাদন করি নিজেকে।
যদি ভাব এ আমার খামখেয়ালিপনার বিলোপ?
তবে তা ভুল,
কেন তার দেয়া সে স্পর্শ এখনো আমারকে গ্রাস করে আছে অনন্ত?
নিরবে একবুক ভালবাসা নিয়ে শাড়ির আচলে-
অর্ধমুখে অপেক্ষারত অষ্টাদশীর সে মায়া মুখটাকে কেন ভুলতে পারছি না আমি?
কেন তার দেয়া সে প্রেমকে উপেক্ষা করার শক্তি আমার নেই?
অপরিমেয় সে ভালবাসার শক্তির কাছে
আমার বোধশক্তিরা মৌনতায় কেন মুচ্ছা গেল?
একেবারে সর্বস্বান্ত এ বুকে নির্লিপ্ত দীর্ঘশ্বাস!
এক অষ্টাদশীর প্রেম কেড়ে নিয়েছে আমার সর্বস্ব।

কবিদের প্রেমের কবিতা ২০২১

অবেলা প্রেমের কবিতা
ফোনকলে তোমাকে অবেলায় ওয়েটিং দেখালে,
বুকের বামপাশে
একটা বেনামি ব্যথা চিঁছচিঁছ করে জেগে উঠে-
আখের বাতাসে লুটোপুটি খেলে নাটাই ছেড়ার সম্ভব্য শব্দতরঙ্গ,
        দেউলিয়া শঙ্খচিল…
কি আর এমন হলো! ভেবে মুক্তচিত্তে চোখ  রাখি
সাদা-কালো ছায়াপথে–
তবুও, শিশিরের মতো বিন্দুবিন্দু নোনাজলে ভিজে ওঠে
        চোখের ফইড়…
              নাকের বাক-
        মনের চৌকাঠ।
মাকড়ীপায়ে চারিপাশে তিরতির করে নেমে আসে প্রেমের অবেলা।
প্রেমিক জনের চিঠি 
ওই কথা কি এভাবে কেউ বলতে পারে?
হঠাৎ করে, সিড়ির বাঁকে, অন্ধকারে

নিশ্বাস নাক গন্ধ পোহায়, চনমিয়া…
ঘুপচি মতাে মুঠোর ভেতর একলা টিয়া

ছটফটাচ্ছে দেখতে পাচ্ছি। চাই না উড়ান?
ঠাকুর ঘরের চাল থেকে পাহাড়চূড়া?

ঠোটের উপর ঘাম মুছে নাও। ডাকছে নীচে।
নখের ঘরে কেটেছে হাত, ওষুধ মিছে।

বুকটুকুনির ওঠানামায় ধুকপুকুনি
জড়িয়ে নেওয়ার মন হলে কে ছাড়ত শুনি?

কিন্তু এখন সবটা ইচ্ছে করছে না যে
হয়তো হঠাৎ উড়ে টিয়া, ভিড়ের মাঝে…

এইটুকু তো অতৃপ্তি দাও প্রেমিক জনে,
একটা চুমু না-খাওয়া থাক, এই জীবনে!
গোপন প্রিয়া 
পাইনি বলে আজো তোমায় বাসছি ভালো, রাণি,
মধ্যে সাগর, এ-পার ও-পার করছি কানাকানি!
আমি এ-পার, তুমি ও-পার,
মধ্যে কাঁদে বাধার পাথার
ও-পার হ’তে ছায়া-তরু দাও তুমি হাত্‌ছানি,
আমি মরু, পাইনে তোমার ছায়ার ছোঁওয়াখানি।

নাম-শোনা দুই বন্ধু মোরা, হয়নি পরিচয়!
আমার বুকে কাঁদছে আশা, তোমার বুকে ভয়!
এই-পারী ঢেউ বাদল-বায়ে
আছড়ে পড়ে তোমার পায়ে,
আমার ঢেউ-এর দোলায় তোমার ক’রলো না কূল ক্ষয়,
কূল ভেঙেছে আমার ধারে-তোমার ধারে নয়!

চেনার বন্ধু, পেলাম না ক’ জানার অবসর।
গানের পাখী ব’সেছিলাম দু’দিন শাখার’ পর।
গান ফুরালো যাব যবে
গানের কথাই মনে রবে,
পাখী তখন থাকবো না ক’-থাকবে পাখীর ঘর,
উড়ব আমি,-কাঁদবে তুমি ব্যথার বালুচর!
 হৃদয়ের ঋণ
আমার জীবন ভালোবাসাহীন গেলে
কলঙ্ক হবে কলঙ্ক হবে তোর,
খুব সামান্য হৃদয়ের ঋণ পেলে
বেদনাকে নিয়ে সচ্ছলতার ঘর

বাঁধবো নিমেষে। শর্তবিহীন হাত
গচ্ছিত রেখে লাজুক দু’হাতে আমি
কাটাবো উজাড় যুগলবন্দী হাত
অযুত স্বপ্নে। শুনেছি জীবন দামী,

একবার আসে, তাকে ভালোবেসে যদি
অমার্জনীয় অপরাধ হয় হোক,
ইতিহাস দেবে অমরতা নিরবধি
আয় মেয়ে গড়ি চারু আনন্দলোক।

দেখবো দেখাবো পরস্পরকে খুলে
যতো সুখ আর দুঃখের সব দাগ,
আয় না পাষাণী একবার পথ ভুলে
পরীক্ষা হোক কার কতো অনুরাগ।
তোমার চোখ এতো লাল কেন?
আমি বলছি না ভালোবাসতেই হবে , আমি চাই
কেউ একজন আমার জন্য অপেক্ষা করুক,
শুধু ঘরের ভেতর থেকে দরোজা খুলে দেবার জন্য ।
বাইরে থেকে দরোজা খুলতে খুলতে আমি এখন ক্লান্ত ।

আমি বলছি না ভালোবাসতেই হবে, আমি চাই
কেউ আমাকে খেতে দিক । আমি হাতপাখা নিয়ে
কাউকে আমার পাশে বসে থাকতে বলছি না,
আমি জানি, এই ইলেকট্রিকের যুগ
নারীকে মুক্তি দিয়েছে স্বামী -সেবার দায় থেকে ।
আমি চাই কেউ একজন জিজ্ঞেস করুক :
আমার জল লাগবে কি না, নুন লাগবে কি না,
পাটশাক ভাজার সঙ্গে আরও একটা
তেলে ভাজা শুকনো মরিচ লাগবে কি না ।
এঁটো বাসন, গেঞ্জি-রুমাল আমি নিজেই ধুতে পারি ।

আমি বলছি না ভলোবাসতেই হবে, আমি চাই
কেউ একজন ভিতর থেকে আমার ঘরের দরোজা
খুলে দিক । কেউ আমাকে কিছু খেতে বলুক ।
কাম-বাসনার সঙ্গী না হোক, কেউ অন্তত আমাকে
জিজ্ঞেস করুক : ‘তোমার চোখ এতো লাল কেন ?’
আমি খুব অল্প কিছু চাই
আমাকে ভালবাসতে হবে না,
ভালবাসি বলতে হবে না.
মাঝে মাঝে গভীর আবেগ
নিয়ে আমার ঠোঁট
দুটো ছুয়ে দিতে হবে না.
কিংবা আমার জন্য রাত
জাগা পাখিও
হতে হবে না.
অন্য সবার মত আমার
সাথে রুটিন মেনে দেখা
করতে হবে না. কিংবা বিকেল বেলায় ফুচকাও
খেতে হবে না. এত
অসীম সংখ্যক “না”এর ভিড়ে
শুধু মাত্র একটা কাজ
করতে হবে আমি যখন
প্রতিদিন এক বার “ভালবাসি” বলব
তুমি প্রতিবার
একটা দীর্ঘশ্বাস
ফেলে একটু
খানি আদর মাখা
গলায় বলবে “পাগলি”
ভালবাসার সময় তো নেই 
ভালবাসার সময় তো নেই
ব্যস্ত ভীষন কাজে,
হাত রেখো না বুকের গাড় ভাজে।

ঘামের জলে ভিজে সাবাড়
করাল রৌদ্দুরে,
কাছএ পাই না, হৃদয়- রোদ দূরে।

কাজের মাঝে দিন কেটে যায়
কাজের কোলাহল
তৃষ্নাকে ছোয় ঘড়ায় তোলা জল।

নদী আমার বয় না পাশে
স্রোতের দেখা নেই,
আটকে রাখে গেরস্থালির লেই।

তোমার দিকে ফিরবো কখন
বন্দী আমার চোখ
পাহারা দেয় খল সামাজিক নখ।
যদি ভালবাসা পাই
যদি ভালবাসা পাই আবার শুধরে নেব
জীবনের ভুলগুলি
যদি ভালবাসা পাই ব্যাপক দীর্ঘপথে
তুলে নেব ঝোলাঝুলি
যদি ভালবাসা পাই শীতের রাতের শেষে
মখমল দিন পাব
যদি ভালবাসা পাই পাহাড় ডিঙ্গাবো
আর সমুদ্র সাঁতরাবো
যদি ভালবাসা পাই আমার আকাশ হবে
দ্রুত শরতের নীল
যদি ভালবাসা পাই জীবনে আমিও পাব
মধ্য অন্তমিল।
প্রেমের কবিতা লিখার ছবি
প্রেমের কবিতা লিখার ছবি
প্রেমের কবিতা লিখার ছবি
প্রেমের কবিতা লিখার ছবি

উপরের ছবি গুলো ডাউনলোড করে আপনি আপনার মনের মতো প্রেমের কবিতা লিখতে পারেন। ছবিতে লিখার জন্য Picsart Software ব্যবহার করতে পারেন।

অনলাইনে আয় করতে আরও পড়ুন

·               কিভাবে বিকাশে টাকা আয় করা যায়
·             মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট
·             কোন গেম খেলে টাকা আয় করা যায় 
·              গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 

আপনারা যারা প্রেমের কবিতা পড়ার চেয়ে শুনতে বেশি পছন্দ করেন তাদের জন্য এই স্পেশাল ব্যবস্তা। আশা করি আপনাদের পছন্দ হবে । প্রেমের ছন্দ ডাউনলোড,মিষ্টি প্রেমের ছন্দ,ব্যর্থ প্রেমের ছন্দ,প্রেমের ছন্দ কবিতা,প্রেমের ছন্দ পিক থাকবে এই ভিডিওতে।

আসা করছি ঊপরের প্রেমের কবিতা এবং ভালবাসার কবিতা গুলো আপনাদের ভালো লেগেছে। যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই নিচের কমেন্ট বক্স-এ কমেন্ট করে আমাদের কাজটির প্রশংসা করতে ভুলবেন না।